আমাদের মেইল করুন dhunatnews@gmail.com
খিলক্ষেতে সড়ক ও ড্রেন উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন

বৃষ্টি মানেই রাজধানীতে এখন জলাবদ্ধতা। বৃষ্টি হলেই রাজধানীর সব রাস্তাঘাট পানিতে তলিয়ে যায়। জলাবদ্ধতার কারণে দীর্ঘদিন ধরে দুর্ভোগ পোহাচ্ছিল খিলক্ষেতবাসী। এই জনদুর্ভোগ লাঘবে খিলক্ষেত প্রধান সড়কের রেলক্রসিং হতে লেকসিটি কনকর্ড সংলগ্ন ব্রিজ এবং বনরূপা হাউজিং হতে বেপারীপাড়া পর্যন্ত নর্দমা নির্মাণসহ রাস্তা উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করা হয়েছে। আজ বুধবার বেলা ১১টায় খিলক্ষেত প্রধান সড়কে (রেলগেট সংলগ্ন) আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি) এর প্যানেল মেয়র মো. ওসমান গণি এবং ঢাকা-১৮ আসনের সাংসদ সাহারা খাতুন এই উন্নয়ন কাজের উদ্বোধন করেন।

অনুষ্ঠানে ১৭ নং ওয়ার্ডের জনসাধারণের উদ্দেশে ওসমান গণি বলেন, জলাবদ্ধতায় আর যেন কষ্ট করতে না হয়, সে জন্য এই উন্নয়নমূলক কাজ হাতে নেওয়া হয়েছে। কাজ শেষ হওয়া পর্যন্ত তিনি সকলের ধৈর্য ও সহযোগিতা কামনা করেন। এই কাজ অত্যন্ত মানসম্মতভাবে করা হবে বলেও তিনি নিশ্চয়তা প্রদান করেন।

প্যানেল মেয়র আরো বলেন, আমরা উন্নয়নের কাজ করে যাচ্ছি। ডিএনসিসি মেয়র আনিসুল হকের নেওয়া সকল উন্নয়নের কাজ অব্যাহত থাকবে।

সাহারা খাতুন এই রাস্তাটির গুরুত্ব অনুধাবন করে জনগণের দীর্ঘদিনের দাবী পূরণ করার জন্য ডিএনসিসি ও মেয়র আনিসুল হককে ধন্যবাদ জানান। তিনি উন্নয়ন কাজটি সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন করার জন্য সবার কাছে সহযোগিতা কামনা করেন।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের ১৭ নং ওয়ার্ডবাসী জলাবদ্ধতার কারণে দীর্ঘদিন ধরে দুর্ভোগ পোহাচ্ছিল। তাই মেয়র আনিসুল হকের উদ্যোগে প্রায় ২৬ কোটি ৮৬ লক্ষ টাকা ব্যয়ে ডিএনসিসির নিজস্ব অর্থায়নে এই উন্নয়নমূলক কাজটি হাতে নেওয়া হয়। খিলক্ষেত প্রধান সড়ক ও সংলগ্ন এলাকায় জলাবদ্ধতাজনিত কারণে জনদুর্ভোগ দূর করতে রাস্তায় বৃহৎ ডায়ার পাইপ লাইনের নির্মাণের জন্য বিশেষ উন্নয়ন তহবিল হতে অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছে। নির্মাণ কাজটির মেয়াদ আগামী বছরের জুন মাসে শেষ হবে। রাস্তাটির মোট দৈর্ঘ্য হবে ৩.৬ কিলোমিটার, মোট কার্পেটিং এরিয়া ১৯ হাজার ৪৫৭ বর্গমিটার এবং মোট সিসি এরিয়া ৭ হাজার ৫ শত ২০ বর্গমিটার।

ডিএনসিসির উদ্যোগে আয়োজিত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ১৭ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর ডাঃ জিন্নাত আলী। অনুষ্ঠানে সংরক্ষিত ওয়ার্ড ১ এর কাউন্সিলর শাহনাজ পারভীন মিতু, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মেসবাহুল ইসলামসহ ডিএনসিসির উর্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ এবং আওয়ামী লীগের বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সম্পাদনা: আরএ/আরবি/এসএ

মন্তব্য