আমাদের মেইল করুন dhunatnews@gmail.com
‘দেশজুড়েই চলছে অপরিকল্পিত নির্মাণযজ্ঞ’

সমঝোতার রাজনীতি, প্রভাবশালী ব্যবসায়ী ও দুর্নীতিবাজ আমলাদের কারণে দেশের উন্নয়ন পরিকল্পনা ঠিক থাকছে না। স্বার্থের কারণে সঠিক পরিকল্পনাতে চলছে সার্জারি। ফলে বর্তমানে দেশজুড়ে যে নির্মাণযজ্ঞ চলছে, তা অনেকক্ষেত্রেই অপরিকল্পিত। পরিকল্পনার অভাবেই আজ রাজধানী ঢাকা বসবাসের অযোগ্য নগরীতে পরিণত হয়েছে। এখনই এ ব্যাপারে সোচ্চার না হলে রাজধানীর মতো পুরো দেশও ইট-কংক্রিটের জঞ্জালে পরিণত হবে, বসবাসের অযোগ্য হয়ে পড়বে। এক্ষেত্রে সঠিক পরিকল্পনা প্রণয়ন করে তা বাস্তবায়নে সরকারের ওপর চাপ সৃষ্টি করতে হবে। কারণ, অপরিকল্পিত উন্নয়নকাজ থেমে নেই।

শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর বাংলামোটর সংলগ্ন প্ল্যানার্স টাওয়ারে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব প্ল্যানার্স (বিআইপি) ও নগর উন্নয়ন সাংবাদিক ফোরাম আয়োজিত ‘নগর উন্নয়ন পরিকল্পনায় সাংবাদিকতার ভূমিকা’ শীর্ষক পরিকল্পনা সংলাপে বক্তারা এ কথা বলেন।

বিআইপির সহসভাপতি অধ্যাপক আখতার মাহমুদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মূল ধারণাপত্র উপস্থাপন করেন ডেইলি স্টারের সিনিয়র রিপোর্টার তৌফিক আলী। ধারণাপত্রে ঢাকা শহরের বাসযোগ্যতা হারানোর পেছনের কারণ হিসেবে সরকারের সঠিক পরিকল্পনার অভাব, সঠিক পরিকল্পনাগুলোকে কেটেছিড়ে তছনছ করা, বিভিন্ন ক্ষেত্রে প্রভাবশালীদের সঙ্গে সরকারের জনস্বার্থবিরোধী আপসরফাকে দায়ী করা হয়।

দেশের উন্নয়নে সঠিক পরিকল্পনা প্রণয়ন ও দ্রুত বাস্তবায়নে সরকারের ওপর চাপ সৃষ্টি করতে হবে বলে জানান নগর পরিকল্পনাবিদ ও সাংবাদিকরা।

মূল ধারণাপত্রে তৌফিক আলী বলেন, ৯৫ পরবর্তী সময় উন্নয়নের নামে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করা হয়েছে। সরকারের দায়িত্বশীল ব্যক্তিরা সমঝোতার রাজনীতি করে ভূমির ব্যবহার পরিবর্তন করে হাউজিং কোম্পানিগুলোকে লাভবান করেছে।

বিআইপির সহসভাপতি ফজলে রেজা সুমন বলেন, নগরায়ন বৃদ্ধি পাচ্ছে ৩.৩ শতাংশ হারে। এই হারে আগালে আগামী তিন দশকে ঢাকার জনসংখ্যা তিনগুণ বেড়ে যাবে। ভূমি ব্যবসায়ীরা এই সুযোগ নিয়ে ভূমির ব্যবহারের পরিবর্তন করিয়ে ফয়দা লুটছে। প্রভাবশালী ব্যবসায়ী, দুর্নীতিবাজ আমলা ও সমঝোতার রাজনীতি অপরিকল্পিত নগরায়নের জন্য দায়ী।

সংলাপে রাজধানীতে রেল যোগাযোগ বৃদ্ধি, শহরের বিকেন্দ্রীকরণ, যোগাযোগ ব্যবস্থার আধুনিকায়ন, খাল-নদী-জলাশয় রক্ষাসহ বিভিন্ন পরমার্শ উঠে আসে। বিশেষ করে তুরাগ-বালু-বুড়িগঙ্গা-ধলেশ্বরী নদী দূষণের বিষয়টি উঠে আসে। রাজধানীর জলাশয়-খালগুলোকে ধ্বংস করা, অনৈতিকভাবে একের পর এক আবাসন কোম্পানির অনুমোদন দেয়ার সমালোচনাও করেন বক্তারা।

বিআইপির সহসভাপতি অধ্যাপক আখতার মাহমুদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে মূল ধারণাপত্র উপস্থাপন করেন ডেইলি স্টারের সিনিয়র রিপোর্টার তৌফিক আলী। সঞ্চালনা করেন বিআইপির সাধারণ সম্পাদক ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা বিভাগের অধ্যাপক ড. আদিল মুহাম্মদ খান।

সম্পাদনা: জেডএইচ/এমএন/পিকেএল

মন্তব্য