আমাদের মেইল করুন dhunatnews@gmail.com
হলো ব্লক ব্যবহার গণপূর্ত নীতিমালায় অন্তর্ভুক্ত হবে

পোড়া ইটের বিকল্প হিসেবে পরিবেশ বান্ধব হলো ব্লক এবং থারমাল ব্লক ব্যবহার গণপূর্ত নীতিমালায় অন্তর্ভুক্ত করা হবে বলে জানিয়েছেন গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী মোশাররফ হোসেন। মঙ্গলবার হাউজিং অ্যান্ড বিল্ডিং রিসার্চ ইনস্টিটিউটের (এইচবিআরআই) উদ্ভাবিত নির্মাণ সামগ্রী ও প্রযুক্তি প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মন্ত্রী এ কথা জানান। রাজধানীর কল্যাণপুরে দারুস সালাম রোডে এইচবিআরআই-এর প্রদর্শনী হলে এ প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়। প্রদর্শনীতে মোট ৩০টি স্টল অংশ নিয়েছে। প্রতিদিন সকাল ১১টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত সর্বসাধারণের জন্য প্রদর্শনী খোলা থাকবে। প্রদর্শনী চলবে ২৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

মন্ত্রী বলেন, ভূ-উপরিভাগের মাটি রক্ষায় পোড়া ইটের বিকল্প হিসেবে থারমাল ব্লক, হলো ব্লক ইত্যাদিকে গণপূর্ত নীতিমালায় অন্তর্ভুক্ত করা হবে। পোড়ামাটির ইট ব্যবহার বন্ধ না হলে ভবিষ্যতে দেশ খাদ্য সংকটে পড়বে। পোড়ামাটির ইটের চেয়ে হলো ব্লক বা থারমাল ব্লক অনেক সাশ্রয়ী জানিয়ে মোশাররফ হোসেন বলেন, টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্য অনুযায়ী ২০২০ সালের মধ্যে পোড়া ইটের ব্যবহার সম্পূর্ণ বন্ধ করার কথা রয়েছে। সরকার সে লক্ষ্য অর্জনে কাজ করছে।

তিনি আরও বলেন, কৃষিজমি সুরক্ষায় উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। নগর ও অঞ্চল পরিকল্পনা আইনে কৃষি জমি সুরক্ষার বিশেষ পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে। বর্তমানে আইনটি ভেটিং-এ রয়েছে। শিগগিরই এ আইন সংসদে তোলা হবে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে স্থপতি মোবাশ্বের হোসেন বলেন, ভারতে ভূ-পৃষ্ঠের উপরিভাগের মাটি দিয়ে ইট তৈরি বন্ধ করা হয়েছে। এ জন্য বাংলাদেশ থেকে ভারতে ইট রফতানি হচ্ছে। ভিয়েতনামে শতকরা ৩০ ভাগ হলো ব্লক ব্যবহার বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন এইচবিআরআই-এর পরিচালক মোহাম্মদ আবু সাদেক।পোড়া ইটের বিকল্প হিসেবে থারমাল ব্লক, হলো ব্লক, ফেরোসিমেন্ট ইত্যাদির মাধ্যমে ভবন নির্মাণ এবং এ সংক্রান্ত প্রযুক্তি প্রদর্শন করা হচ্ছে প্রদর্শনীতে। প্রদর্শনীর সার্বিক ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে গ্রীনব্রিজ এ্যাড পয়েন্ট।

 

মন্তব্য