আমাদের মেইল করুন abasonbarta2016@gmail.com
নির্মাণ সামগ্রীর মূল্য বৃদ্ধি পাওয়ায় আবারও অস্থিরতায় আবাসন শিল্প

ফ্ল্যাট নির্মাণের জন্য রড-সিমেন্ট-ইট সহ অন্যান্য নির্মাণ সামগ্রীর মূল্য বৃদ্ধি পাওয়ায় দেশের আবাসন খাত আবারও বড় ক্ষতির সম্মূখিন হতে পারে মনে করছেন রিয়েল এস্টেট এ্যান্ড হাউজিং এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (রিহ্যাব) এর নেতৃবৃন্দ। আজ মঙ্গলবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে রিহ্যাব নেতৃবৃন্দ বলেন, দীর্ঘ দিনের মন্দা কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই আবারও অস্থির অবস্থার মধ্যে পড়তে যাচ্ছে নির্মাণ শিল্প।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য তুলে ধরেন রিহ্যাব প্রেসিডেন্ট আলমগীর শামসুল আলামিন এবং সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট নুরুন্নবী চৌধুরী (শাওন), এমপি। এ সময় রিহ্যাব এর ভাইস প্রেসিডেন্ট (প্রথম) লিয়াকত আলী ভূইয়া, রিহ্যাব পরিচালক কামাল মাহমুদ, নাইমুল হাসান, শাকিল কামাল চৌধুরী, ড. প্রকৌশলী মাসুদা সিদ্দিক রোজী, এস.এম. জাহিদুর রহমান, মোহাম্মদ আবু বকর সিদ্দিক, প্রকৌশলী মোঃ মহিউদ্দিন সিকদারসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে রিহ্যাব প্রেসিডেন্ট আলমগীর শামসুল আলামিন বলেন, নির্মাণ খাতের প্রধান উপকরণ রড এবং সিমেন্ট দাম বাড়ছে অস্বাভাবিকভাবে। তিনি বলেন, এক বছর আগে ৬০ গ্রেডের রডের বাজার মূল্য ছিল ৫২ থেকে ৫৩ হাজার টাকা আর ৪০ গ্রেডের রডের বাজার মূল্য ৪২ থেকে ৪৩ হাজার টাকা। বর্তমানে সেই রডের বাজার মূল্য যথাক্রমে প্রায় ৬৫-৬৮ হাজার টাকা এবং ৫৩-৫৬ হাজার টাকা। অর্থাৎ এক বছরে রডের মূল্য বেড়েছে প্রায় ২৩ শতাংশ। একই ভাবে প্রতি বস্তায় ৫০ থেকে ৬০ টাকা সিমেন্টের মূল্য বৃদ্ধির কথাও বলেন রিহ্যাব প্রেসিডেন্ট। নির্মাণ উপকরণের এই মূল্য বৃদ্ধি যথাসময়ে ফ্ল্যাট হস্থান্তর অনিশ্চয়তার মুখে ফেলবে এমন শংকার কথা বলেন আলমগীর শামসুল আলামিন।

সংবাদ সম্মেলনে রিহ্যাব এর সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট নুরুন্নবী চৌধুরী (শাওন), এমপি বলেন, নির্মাণ সামগ্রীর পাশাপাশি ব্যাংকে গৃহঋণের সুদের হার বাড়ায় এখন আবাসন খাত আরও ঝুঁকির মুখে পড়ছে। এতে আবাসন খাত আবারও গতিহীন অবস্থায় গিয়ে পড়বে মনে করেন তিনি। রড সিমেন্টের মূল্য বৃদ্ধি শুধু আবাসন খাতকেই ক্ষতিগ্রস্থ করবে না এর সাথে সরকারের উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডে ব্যয় বৃদ্ধি ও বাঁধাগ্রস্থ হবে বলেনও মনে করেন তিনি। আবাসন শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট রড, সিমেন্ট, পাথরসহ বিভিন্ন সমিতির সবার সাথে মতবিনিময় করে উদ্ভূত সমস্যার কার্যকর সমাধান বের করার আহ্বান জানান রিহ্যাব এর সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট। সরকারের সহযোগীতা কামনা করে প্রয়োজনে রড সিমেন্ট তৈরির কাঁচামালের উপর কর কমিয়ে দেওয়ার দাবি জানান নুরুন্নবী চৌধুরী (শাওন), এমপি ।

রিহ্যাব নেতারা বলছেন, হঠাৎ করে নির্মাণসামগ্রীর মূল্য বৃদ্ধি পাওয়ায় অনেক আবাসন ব্যবসায়ী নির্মাণকাজ সাময়িকভাবে বন্ধ করে দিতে চাইছেন। ফলে নির্দিষ্ট সময়ে ফ্ল্যাট হস্তান্তর অনিশ্চয়তার মুখে পড়বে। দুর্ভোগে পড়বেন ক্রেতারা।

এক সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে রিহ্যাব সভাপতি আলমগীর শামসুল আলামিন বলেন, রড-সিমেন্টের দাম আগের অবস্থায় না ফিরলে ফ্ল্যাটের দাম ২০ থেকে ২৫ শতাংশ পর্যন্ত বেড়ে যেতে পারে। অন্যদিকে, নুরুন্নবী চৌধুরী বলেন, রড-সিমেন্টের দাম বাড়ায় প্রতি বর্গফুট ফ্ল্যাট নির্মাণে ২০০ থেকে ২৫০ টাকা পর্যন্ত বৃদ্ধি পাবে ।

 

মন্তব্য