আমাদের মেইল করুন dhunatnews@gmail.com
অবহেলায় খালশূন্য হচ্ছে ঢাকা

চারপাশে নদী আর সঙ্গে সংযুক্ত বহু খাল, বিল আর জলাশয় নিয়ে একসময় অপরূপ এক মায়ার জালে জড়িয়ে ছিল রাজধানী ঢাকা। তার মধ্যে ঢাকার ভেতরের শ’খানেক প্রাকৃতিক খাল যে ছিল এই শহরের দেহে রক্ত সঞ্চালনের শিরা-উপশিরার মত। সেগুলো শুধু ঢাকার প্রাকৃতিক রূপকে দৃষ্টিনন্দন করেনি, পরিচ্ছন্ন ও সচল রাখতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রেখেছে। অথচ কালের পরিক্রমায় নানান ভুল আর অহেলায় আজ প্রায় খালশূন্য ঢাকা। তাই নগরের অচলাবস্থা সৃষ্টি হয় নিয়মিত।

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যমন্ডিত ঢাকা সেই মুঘল আমল থেকেই আকর্ষনের কেন্দ্রে ছিলো। যা মুঘলদের ঢাকাকে  রাজধানী করতে উদ্বুদ্ধ করে। এর মূলে ছিলো শহরের ভেতর দিয়ে বয়ে চলা শতাধিক খাল। যা নগরীর চারপাশের বুড়িগঙ্গা, শীতলক্ষা, তুরাগ ও বালু নদীর সাথে সংযুক্ত ছিলো। মালামাল পরিবহণ ও বাণিজ্যিক প্রসারের কারনে শহরের ভেতর দিয়ে একপ্রান্ত থেকে অন্যপ্রান্তে সহজেই চলাচল করতো নৌকা-স্টিমার।

শত বছর আগে ব্রিটিশ নগর পরিকল্পনাবিদ স্যার প্যাট্রিক গেডিস ঢাকা টাউন প্ল্যান নামে একটি পরিকল্পনায় চারিদিকে নদী দিয়ে ঘেরা ঢাকাকে ব-দ্বীপ এলাকার শহর হিসেবে উল্লেখ করেন। শহর পরিকল্পনায় নদী, খাল সংরক্ষণ ও জলাশয়ের সঠিক ব্যবহারের তাগিদ দিয়েছিলেন প্যাট্রিক গেডিস।

বিভিন্ন সময়ের জরিপে দেখা যায়, শতাধিক খাল ছড়িয়ে ছিটিয়ে ছিলো ঢাকার ভেতর। ওয়াসা’র তথ্যমতে এ সংখ্যা ৬৫টি। তবে, মানচিত্রে ৫০টি খালের অবস্থান চিহ্নিত করা যায়। নগর পরিকল্পনাবিদ ও নগর গবেষকদের মতে এ অঞ্চলের সব খালই ছিলো প্রাকৃতিকভাবে সৃষ্ট।

খালের জমি জেলা প্রশাসনের। তবে একসময় দেখভাল করতো পানি উন্নয়ন বোর্ড। পরে দায়িত্ব বর্তায় ঢাকা ওয়াসার ওপর। রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ-রাজউক ও সিটি কর্পোরেশনও আছে সামগ্রিক সমন্বয়ের দায়িত্বে। বৈশাখি টিভি

মন্তব্য