আমাদের মেইল করুন dhunatnews@gmail.com
এবার সরকারী কর্মচারীরা ২৮৮ ফ্ল্যাট পাবে তেজগাঁওয়ে

রাজধানীতে কর্মরত সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য এবার তেজগাঁওয়ে বহুতল আবাসিক ভবন নির্মাণ করবে সরকার। আবাসন সঙ্কট নিরসন সংক্রান্ত বিশেষ উদ্যোগের অংশ হিসেবে তেজগাঁও স্টাফ কোয়ার্টার ক্যাম্পাস এলাকায় নতুন ছয়টি ১৩ তলা ভবনে ২৮৮টি ফ্ল্যাট তৈরি করবে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়। এসব ফ্ল্যাটের আয়তন হবে ৬৫০ থেকে ৮০০ বর্গফুট। ফ্ল্যাটগুলো তৈরিতে ব্যয় হবে ১৬৮ কোটি টাকা। সংশ্লিষ্টরা মনে করছেন, ফ্ল্যাটগুলো তৈরি হলে রাজধানীতে কর্মরত সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের উপযুক্ত, মানসম্মত স্বাস্থ্যকর আবাসন নিশ্চিত হওয়ার পাশাপাশি তাদের কাজের মানও বৃদ্ধি পাবে। এজন্য একটি প্রকল্প চূড়ান্ত করেছে পরিকল্পনা কমিশন। জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) আগামী সভায় এ সংক্রান্ত প্রকল্পটি অনুমোদনের জন্য উপস্থাপনের কথা রয়েছে। একনেকে অনুমোদন ২০২০ সালের জুনের মধ্যে প্রকল্পগুলোর কাজ শেষ করবে গণপূর্ত অধিদফতর। রবিবার পরিকল্পনা কমিশন সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

এ প্রসঙ্গে পরিকল্পনামন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল জনকণ্ঠকে বলেন, সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আবাসন সঙ্কট প্রকট আকার ধারণ করেছে। রাজধানীতে কর্মরত সরকারী চাকুরেদের মাত্র ৮ শতাংশ আবাসন সুবিধা পেয়ে থাকেন। বিশাল একটি অংশ বেসরকারীভাবে ভাড়া বাসায় অবস্থান করেন। ফলে তাদের নানাবিধ সমস্যার মধ্যদিয়ে দিন কাটাতে হয়। এজন্য সরকার চেষ্টা করছে তাদের আবাসন সঙ্কট দূর করার। ইতোমধ্যেই এ সংক্রান্ত অনেকগুলো প্রকল্প অনুমোদন দেয়া হয়েছে। আবার কোন কোনটির বাস্তবায়নও হয়ে গেছে। আমরা চাই সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পাক। তারা যেন আবাসনের দুশ্চিন্তা থেকে মুক্ত হয়ে মনোযোগ দিয়ে দেশের জন্য কাজ করতে পারেন।

রাজধানীতে সরকারী কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আবাসন সঙ্কট নিরসনে বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। এর অংশ হিসেবে গত বছরের ২৮ নবেম্বর তিনটি প্রকল্প অনুমোদন দেয় একনেক। এসব প্রকল্পের আওতায় আজিমপুর, মতিঝিল ও জিগাতলায় মোট ১ হাজার ৯৬০টি ফ্ল্যাট তৈরি করছে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়। এর মধ্যে আজিমপুরে ১ হাজার ২৯২টি, মতিঝিলে ৩৮০ টি এবং জিগাতলায় ২৮৮টি ফ্ল্যাট হবে। এসব ফ্ল্যাটের আয়তন হবে ৮০০ থেকে ১ হাজার ২৫০ বর্গফুট। ফ্ল্যাটগুলো তৈরিতে ব্যয় হবে ১ হাজার ৫৫১ কোটি টাকা। ওই প্রকল্পগুলোর ধারাবাহিকতায় তেজগাঁওয়ের এই প্রকল্প নেয়া হয়েছে। এছাড়া এরই মধ্যে দুইটি প্রকল্পের আওতায় জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জন্য শেরেবাংলা নগরে ১৫তলা বিশিষ্ট ৪৪৮টি ফ্ল্যাট এবং সুপ্রীমকোর্টের বিচারপতিদের জন্য ২০তলা আবাসিক ভবনে ৭৬টি ফ্ল্যাটসহ মোট ৫২৪টি ফ্ল্যাট নির্মাণ করে হস্তান্তর করা হয়েছে।

মন্তব্য