আমাদের মেইল করুন abasonbarta2016@gmail.com
স্বপ্ন ছোঁয়ার গল্প শোনালেন ১৫০ তরুণ

ভরা মিলনায়তন আলো করে ছিলেন দেশের নানা প্রান্ত থেকে আসা ১৫০ জন তরুণ। দারিদ্র্যের কারণে যাদের লেখাপড়া বন্ধের উপক্রম হয়েছিল। ছোট্ট, কোমল হাতে কারও উঠেছে কোদাল, কেউ ধরেছে ভ্যানগাড়ির হাতল। কেউ কেউ মজুরি খেটেছে, রাতে বসেছে পড়তে। এত কষ্টেও দমেনি ওরা। তবু তাদের কেউ হাল ছাড়েননি। পা রেখেছে সাফল্যের প্রথম সোপানে। তারা এখন দেশের নামকরা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েন। তাদের শিক্ষা সহায়তা দিচ্ছে এসইএল চ্যারিটেবল ফাউন্ডেশন।
দারিদ্র্যের কাছে হার না মানা সেই সব অদম্য মেধাবীর নিয়ে শুক্রবার রাজধানীর পান্থপথে এসইএল সেন্টারে ‘স্বপ্ন ছোঁয়ার গল্প’ শিরোনামে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে এসইএল চ্যারিটেবল ফাউন্ডেশন। সেখানে তরুণরা শোনান তাদের সংগ্রামের কথা।
দেশের প্রথিতযশা আবাসন ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান স্ট্রাকচারাল ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেডের (এসইএল) দাতব্য প্রতিষ্ঠান হিসেবে পরিচালিত এই ফাউন্ডেশন মেধাবী দরিদ্র শিক্ষার্থীদের পড়াশোনায় সাহায্য করে থাকে। এখন পর্যন্ত এই সংস্থাটি অন্তত ৫০০ শিক্ষার্থীকে পড়াশোনার জন্য সহায়তা দিয়েছে বলে জানান সংশ্লিষ্টরা।
এ আয়োজনে প্রধান অতিথি ছিলেন এসইএল চ্যারিটেবল ফাউন্ডেশনের সভাপতি ও দ্য স্ট্রাকচারাল ইঞ্জিনিয়ার্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আবদুল আউয়াল। সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন স্থপতি মোবাশ্বের হোসেন। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন চ্যারিটেবল ফাউন্ডেশনের সমন্বয়কারী ইবনুল সাইদ রানা।
আবদুল আউয়াল শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলেন, লক্ষ্যহীন জীবন মৃত্যুর সমান। একজন শিক্ষার্থীর মধ্যে যদি আত্মবিশ্বাস শক্তি, ভবিষ্যৎ স্বপ্ন থাকে তাহলে তার জীবনের গতি-চেতনা তাকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। একজন শিক্ষার্থীর যদি আত্মবিশ্বাস না থাকে, স্বপ্ন না থাকে তাহলে একসময় জীবনের গতি-চেতনা থেমে যাবে। এ কারণে প্রতিটি শিক্ষার্থীকেই জীবনের লক্ষ্য ঠিক করে তাকে এগোতে হয়।
স্থপতি মোবাশ্বের হোসেন বলেন, ‘আমি আমার স্বপ্ন পূরণ করতে পারলাম না বলে নিজের জীবনকে তুচ্ছ মনে করলে সে কিছুই করতে পারবে না। দৃঢ় পণ, আত্মবিশ্বাস, স্বপ্ন নিয়ে এগিয়ে যাও দেখবে সাফল্যের দুয়ার তোমায় হাতছানি দিয়ে ডাকছে, জীবনে সফলতা আসবে, আলোর মুখ দেখবে, জীবন থেকে অন্ধকার হারিয়ে যাবে।’

শেয়ার করুন