আমাদের মেইল করুন dhunatnews@gmail.com
৫ম দফা কাটাছেঁড়া হচ্ছে পূর্বাচলের লে-আউট

পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্পের ল্যান্ড ইউজ প্ল্যান বা নকশা পঞ্চম দফা কাটাছেঁড়া করতে যাচ্ছে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)। প্রকল্পের বিভিন্ন সেক্টরে ওয়াকফ সম্পত্তিতে গড়ে ওঠা মসজিদ, মাদরাসা, কবরস্থান এবং স্কুল-কলেজ সরজমিন দেখে নতুন নকশায় প্রদর্শন করা হবে। এছাড়া সুউচ্চ আইকনিক টাওয়ারকে নকশায় দৃশ্যমান করা হবে। ল্যান্ড ইউজ প্ল্যানে সংশোধনী আনতে এরই মধ্যে রাজউকের বোর্ড সভায় অনুমোদন দেয়া হয়েছে। রাজউক সূত্রে জানা গেছে, পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্পকে একটি আধুনিক ও সুপরিকল্পিত শহর হিসেবে গড়ে তুলতে ২০০৪ সালে ডিটেইল ল্যান্ড ইউজ প্ল্যান তৈরি করা হয়। তবে ২০০৫ সালে পূর্বাচল প্রকল্পের গাজীপুর অংশে ভূমি অধিগ্রহণ প্রক্রিয়া শেষ করা যায়নি।

তাই যারা প্লট বরাদ্দ পেয়ে ১ম কিস্তি পরিশোধ করেন ওই সব প্লট মালিকদের নারায়ণগঞ্জ অংশে প্লট বরাদ্দ দিতে প্রথম দফায় ল্যান্ড ইউজ প্ল্যান সংশোধন ও অনুমোদন করা হয়। পরে একই সালে বরাদ্দের জন্য ঘোষিত সব প্লট নারায়ণগঞ্জ অংশে সংস্থানের জন্য দ্বিতীয় দফা ল্যান্ড ইউজ প্ল্যান সংশোধন করা হয়। এরপর লেক, বন সংরক্ষণ, স্যুয়ারেজ ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট, সলিড ওয়েস্ট ড্যাম্পিং স্টেশন, ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক স্থানান্তর ও জিন্দা পার্ক সংরক্ষণসহ নানা কারণে তৃতীয় দফা ল্যান্ড ইউজ প্ল্যান সংশোধন করা হয়। রাজউকের ০৮/ ২০০৯তম বোর্ড সভায় এ সংশোধনী অনুমোদন দেয়া হয়। ২০১৩ সালে গাজীপুর অংশের ভূমি অধিগ্রহণ সার্ভে কাজ শেষ করা হয়। তাই উচ্চ আদালতের রায় ও পরিবেশগত ছাড়পত্র পাওয়ার জন্য একই বছর ল্যান্ড ইউজ প্ল্যান চতুর্থ দফা সংশোধন ও অনুমোদন করা হয়। প্রকল্প অফিস সূত্রে জানা গেছে, পূর্বাচল নতুন শহর প্রকল্পের ল্যান্ড ইউজ প্ল্যান (চতুর্থ মডিফিকেশন) অনুযায়ী প্রকল্পের ৪ নং সেক্টরে বাংলাদেশ-চায়না ফ্রেন্ডশিপ এক্সিবিশন সেন্টারের জন্য প্রদর্শিত ১০ একর জায়গার বদলে ২০ একর জমি বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। রাজউকের ০৬/২০১৪তম বোর্ডসভায় শিল্পপার্কের জন্য জমি বরাদ্দের ক্ষেত্রে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। রপ্তানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি)-এর বরাবরে বরাদ্দকৃত জমিটি নতুন লে-আউটে ২০ একর আকারে দেখানো হবে। এছাড়া সর্বশেষ বোর্ডসভায় গাড়ি পার্কিংয়ের জন্য আরো ছয় একর জায়গা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এদিকে পূর্বাচল প্রকল্পের ১ নং সেক্টরের ১০২ নং রাস্তার ০০৪ নং প্লটটি ২১ দশমিক ৩৩১ একর আয়তনের শিল্পপার্ক স্থাপনের কথা বলা হয়েছে। এ জমি থেকে রাজউক সেন্ট্রাল স্টেক ইয়ার্ড নির্মাণের জন্য ১০ একর জমি রাখা হয়েছে। এ বিষয়টিও রাজউকের ০৮/২০১৬তম বোর্ডসভায় অনুমোদন পেয়েছে। এছাড়া প্রকল্পের ১৯ নং সেক্টরে সুউচ্চ আইকনিক টাওয়ার নির্মাণের পরিকল্পনা রয়েছে। টাওয়ার নির্মাণের জায়গা ল্যান্ড ইউজ প্ল্যানে দেখানো হয়নি। এরই মধ্যে আইকনিক টাওয়ার নির্মাণের জন্য একটি প্রতিষ্ঠানকে নির্বাচন করা হয়েছে। তাই পূর্বাচলের ১৯ নং সেক্টরের সিবিডি এলাকা ও ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক এলাকার লে-আউট প্ল্যান সংশোধন করা হবে। রাজউকের পরিকল্পনা শাখার এক কর্মকর্তা জানান, পঞ্চম দফা সংশোধনের জন্য ল্যান্ড ইউজ প্ল্যান বর্তমানে নির্ধারিত কনসালট্যান্টের কাছে রয়েছে। কনসালট্যান্ট সংশোধন করে পাঠানোর পর তা রাজউকের বোর্ডসভায় অনুমোদন পাবে। আগামী দুয়েক মাসের মধ্যে সংশোধিত নকশা পাওয়া যেতে পারে। মানবজমিন

মন্তব্য