আমাদের মেইল করুন dhunatnews@gmail.com
অভিযোগ জানিয়ে আবাসন কর্তৃপক্ষের তোপে ভাড়াটে

বাসস্থানের নিম্নমান নিয়ে স্থানীয় একটি টিভি চ্যানেলে দেওয়া সাক্ষাৎকারে অভিযোগ করেছিলেন কেশিয়া বেনজামিন। এতে অভিযোগের নিষ্পত্তি তো হয়ইনি, বরং ভোগান্তি বেড়েছে ৪০ বছর বয়সী এই নারীর। নিউইয়র্ক নগরের আবাসন কর্তৃপক্ষই (এনওয়াইসিএইচএ) তাঁকে এখন হয়রানি করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। বিষয়টি নিয়ে তদন্তে নেমেছে সিটি কাউন্সিল।
কেশিয়া বেনজামিন ইস্ট ভিলেজের জ্যাকব রিস হাউসেস-এ থাকেন। সম্প্রতি একটি টিভি চ্যানেলে প্রচারিত সংবাদ প্রতিবেদনে তিনি তাঁর অ্যাপার্টমেন্টের মান নিয়ে অভিযোগ করেন। সেখানে আবাসন কমপ্লেক্সটির বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে তিনি কথা বলেন। আর সেই অভিযোগই কাল হয়ে দাঁড়িয়েছে তাঁর জন্য। সম্প্রতি তাঁকে নিজের অ্যাপার্টমেন্ট থেকে বিতাড়নের হুমকি দিয়ে একটি নোটিশ দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন কেশিয়া।
কেশিয়া বেনজামিন ওই অ্যাপার্টমেন্ট ২০১৫ সাল থেকে আছেন। এর আগে তিনি গৃহহীনদের জন্য নির্মিত আশ্রয়কেন্দ্রে ছিলেন। বর্তমান আবাসস্থল নিয়ে সাম্প্রতিক অভিযোগের পর তাঁকে অ্যাপার্টমেন্ট থেকে বিতাড়নের হুমকি দেওয়া হয়েছে জানিয়ে তিনি নিউইয়র্ক ডেইলিকে বলেন, ‘তাঁরা আমাকে চুপ করিয়ে রাখতে চেয়েছিল। কিন্তু আমি তাঁদের এমন চাওয়ায় সাড়া দিইনি।’
কেশিয়া বেনজামিন বলেন, এই মাসের শুরুর দিকে এনওয়াইসিএইচএ-এর একটি নোটিশ তাঁর কাছে এসেছে। সেখানে বলা হয়েছে, অ্যাপার্টমেন্ট থকে বহিষ্কার করা যায় কি না, তা জানতে এনওয়াইসিএইচএ-এর কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে তাঁর সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য পাঠানো হয়েছে। এই নোটিশে এমন পদক্ষেপ সম্পর্কে কোনো ব্যাখ্যা দেওয়া হয়নি। পরে এর কারণ জানতে চাইলে এনওয়াইসিএইচএ কর্মকর্তা কেশিয়া বেনজামিনকে জানিয়েছেন, তাঁর ভাড়া বকেয়া পড়েছে। এ জন্যই এমন পদক্ষেপ নেওয়ার কথা ভাবছে কর্তৃপক্ষ। যদিও কেশিয়া বেনজামিন জানিয়েছেন, তাঁর ভাড়া বকেয়া নেই। তবে গত বছর নগরের সমাজ সেবা বিভাগের সঙ্গে হওয়া এক দ্বন্দ্বের পরিপ্রেক্ষিতে সাত মাস ভাড়া বকেয়া পড়েছিল। তাঁর বাসা ভাড়া তিনি নিজে দেবেন নাকি সমাজ সেবা বিভাগ দেবে এই নিয়েই ছিল দ্বন্দ্ব। তবে গত ফেব্রুয়ারি থেকে এনওয়াইসিএইচএ-এর কাছে ভাড়া বাবদ তাঁর আর কোনো বকেয়া নেই।

কেশিয়া বেনজামিন বলেন, ‘আবাসন সম্পর্কে অভিযোগ করার পর অন্য ভাড়াটেদের সঙ্গেও এনওয়াইসিএইচএ এই ধরনের আচরণ করেছে বলে শুনেছি। এবার নিজেই তার ভুক্তভোগী হলাম।’
এ বিষয়ে একটি তদন্তের জন্য এরই মধ্যে অনুরোধ করছেন ম্যানহাটনের ডেমোক্র্যাট কাউন্সিলউইমেন কারলিনা রিভেরা। এতে এনওয়াইসিএইচএ কোনো ভাড়াটিয়াকে আবাস্থল নিয়ে প্রকাশ্যে অসন্তোষ প্রকাশের কারণেই হুমকি দিচ্ছে কি না, তা তদন্ত করে দেখার জন্য সিটি কাউন্সিলকে অনুরোধ করেছেন তিনি। একই সঙ্গে কাউন্সিল চেয়ারম্যানকে অনুরোধ করেছেন আবাসন কর্তৃপক্ষের কার্যক্রম পর্যবেক্ষণের জন্য।
সিটি কাউন্সিলের তদন্ত কমিটি বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে ৩০ এপ্রিল জানিয়েছে। তবে এ ধরনের অভিযোগ অস্বীকার করেছে এনওয়াইসিএইচএ।
কেশিয়া বেনজামিনকে দেওয়া নোটিশ সম্পর্কে জানতে চাইলে নিউইয়র্ক ডেইলিকে সংস্থাটির মুখপাত্র রবিন লেভিন বলেন, ‘ওই নোটিশ প্রত্যাহার করা হয়েছে। ওটা ছিল একটি স্বয়ংক্রিয় নোটিশ। ১২ মাস সময়ের মধ্যে ভাড়া বকেয়া থাকার ঘটনা ঘটায় এই নোটিশ দেওয়া হয়েছিল। কোনো বাসিন্দার সঙ্গেই এনওয়াইসিএইচএ-এর কোনো শত্রুতা নেই। কেশিয়া বেনজামিনকে অ্যাপার্টমেন্ট থেকে বহিষ্কারের কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। বরং অভিযোগ অনুসারে তাঁর বাসা মেরামতের উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে।’ প্রথম আলো

মন্তব্য