আমাদের মেইল করুন dhunatnews@gmail.com
দখলদাররা ফোনে আয়েশাকে বলে ‘তোর আজরাইল বলছি’

রাজধানীর উওরবাড্ডা এলাকায় ভাওয়ালী থানায় আয়েশা আক্তার নামে এক মহিলার আধা কাঠা জমি দখল করার অভিযোগ উঠেছে। দখলের পর সেই জায়গায় ফাউন্ডেশন দিয়ে প্রায় তিন তলা পর্যন্ত কাজ শেষ করেছে দখলদাররা । উওরবাড্ডা ভাত্তয়ালী পাড়া ১১৮ নম্বর হোল্ডিং বাড়ির মালিক আয়েশা আক্তার। আর ১২২ হোল্ডিং নম্বর বাড়ির মালিক মারজাহান আক্তার এই আধা কাঠা জমি দখল করে নিয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন আয়েশা আক্তার। এজন্য থানা, রাজউক ও কোর্টে মামলা করেও বাড়ির কাজ কোনভাবেই বন্ধ করতে পারছেন না তিনি।

এবিষয়ে গত জুলাই মাসে আয়েশা আক্তার বাড্ডা থানায় জিডি করেন। জিডির পর পুলিশ জায়গা পরিদর্শন করলেও কোনো প্রতিকার তিনি পাননি। এমনকি পুলিশের পক্ষ থেকেও কোনো উদ্যোগ নেয়া হয়নি বলে আয়েশা আক্তার অভিযোগ করেন। পুলিশ দখলদারের ভাই মিজান ও মাসুদের থেকে টাকা নিয়ে চুপ আছেন বলেও তিনি অভিযোগ করেন।

জিডির তদন্ত কর্মকর্তা এসআই আশরাফুল আরটিভি অনলাইনকে বলেন, বিষয়টি নিয়ে আমরা সরজমিনে গিয়েছিলাম। সেখানে জায়গাটা দখল হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। এলাকার চেয়ারম্যানের সাথে কথা বলে একটা সরকারি আমিন দিয়ে জায়গাটা মাপার জন্য বলেছি। মাপার পর যদি জমির মাপে হেরফের পাওয়া যায় তাহলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

বাড়ির নির্মাণ কাজ বন্ধ করার প্রসঙ্গে আশরাফুল বলেন, পুলিশ শুধু জিডির মাধ্যমে বাড়ির কাজ বন্ধ করতে পারে না। এটি কোর্টের কাজ।

এদিকে জিডি করার পর বিভিন্ন সময় ফোনে ভয়ভীতি দেখানো হচ্ছে বলে জানান আয়েশা আক্তার। গত ৬ই জুলাই +96653396833 এই নম্বর থেকে ফোন দেয়া হয়। কে বলছেন জিজ্ঞাস করলে বলে, তিনি বলে তোর আজরাইল বলছি।

জমি দখলের বিষেয়ে আয়েশা আক্তার রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক)এর কাছেও অভিযোগ করেছেন। সেখান থেকে দুইবার নোটিশও দেওয়া হয়েছে।

এই ব্যাপারে রাজউকের ইন্সপেক্টর সরফুদ্দিন আরটিভি অনলাইনকে বলেন, আমরা প্রথমে নোটিশ পাঠাই। নোটিশে অবৈধ্য কাজ বন্ধ করার জন্য বলা হয়। এখানে দুইটি নোটিশ দেয়া হয়েছে। এখন যদি তারা কাজ বন্ধ না করে তাহলে আরেকটি নোটিশ দিয়ে উচ্ছেদ অভিযান চালানো হবে। আরটিভি

মন্তব্য