আমাদের মেইল করুন abasonbarta2016@gmail.com
ঘোষণা
আবাসন সম্পর্কিত যেকোনো নিউজ পাঠাতে পারেন আমাদের এই মেইলে- abasonbarta2016@gmail.com
উত্তরার ফ্ল্যাট ক্রেতাদের ভাগ্য নির্ধারণ হবে আগামীকাল রবিবার

রাজধানীতে স্বপ্নের বাড়ি পেতে যারা উত্তরা অ্যাপার্টমেন্ট প্রকল্পে আবেদন করেছেন তাদের কার ভাগ্যে কোন ফ্ল্যাট যাচ্ছে তা জানা যাবে আগামীকাল রোববার (১০ সেপ্টেম্বর)। এদিনই ভাগ্য নির্ধারণ হবে ফ্ল্যাট ক্রেতাদের। রোববার (১০ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০টায় রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক) ভবনে লটারির ড্র অনুষ্ঠিত হবে। ভাগ্যবান গ্রহীতারা তাদের ফ্ল্যাটের মালিকানা বুঝে পাবেন। গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন লটারির উদ্বোধন করবেন।

সরকারের ষষ্ঠ পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনার আলোকে নিম্ন ও মধ্যম আয়ের লোকদের আবাসন সমস্যা নিরসনের লক্ষ্যে বহুতল ভবন (অ্যাপার্টমেন্ট) নির্মাণের উদ্যোগ নেয় সরকার। তারই ধারাবাহিকতায় রাজউক উত্তরায় ১৮নং সেক্টরে বহুতল অ্যাপার্টমেন্ট ভবন নির্মাণের উদ্যোগ নেওয়া হয়।
উত্তরা ১৮ নং সেক্টরটি তিনটি ব্লকে বিভক্ত। তারমধ্যে ‘এ’ ব্লকে র্সবসাকুল্লে (গ্রস) ১৬৫৪ বর্গফুট আয়তনের মোট ৬ হাজার ৬৩৬টি ফ্ল্যাট নির্মাণ কাজ শেষ পর্যায়ে রয়েছে। সমগ্র প্রকল্প এলাকাটি উন্নত নাগরিক সুবিধাসহ পরিবেশ বান্ধব ও মনোরম সবুজ বেষ্টনীতে গড়ে তোলা হবে এবং প্রতিটি ভবনের স্থাপত্যশৈলীতে আধুনিকতার ছাপ থাকবে। ৬ হাজার ৬৩৬টি ফ্ল্যাটের মধ্যে বিভিন্ন পর্যায়ে ৫৬১৪টি ফ্ল্যাট বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।
রোববার (১০ সেপ্টেম্বর) লটারির জন্য নির্বাচিত মোট ফ্ল্যাট বরাদ্দ গ্রহীতার সংখ্যা ১ হাজার ৮৩২ জন।

হস্তান্তর উপযোগী মোট ৮৪০টি ফ্ল্যাটের মধ্যে ১২তম এসএ গেমসে স্বর্ণজয়ী ৩ জন কৃতি খেলোয়াড়কে ৩টি ফ্ল্যাট ১৮-এ-৩ডি-২০১, ১৮-এ-৩ডি-২০২ ও ১৮-এ-৩ডি-২০৩ এরইমধ্যে দেওয়া হয়েছে।
লটারির জন্য নির্বাচিত ১৮৩২ জন গ্রহীতাদের মধ্যে যারা ২০১৭ সালের ১ জানুয়ারির মধ্যে ৪র্থ কিস্তির মূল্য পরিশোধ করেছেন, তাদের লটারি অনুষ্ঠিত হবে রোববার। এদিন ৮৩৭টি ফ্ল্যাটের আইডি দেওয়া হবে।
আরও ২৪৩৬টি ফ্ল্যাট আগামী নভেম্বরের মধ্যে হস্তান্তর উপযোগী হবে এবং ডিসেম্বরে আইডি দেওয়া হবে। অবশিষ্ট ফ্ল্যাট ২০১৮ সালের মার্চ মাসে হস্তান্তর উপযোগী হবে।
উত্তরা ১৮ নং সেক্টরের ‘এ’ ব্লকে নির্মাণাধীন ১৬৫৪ বর্গফুট আয়তনের ফ্ল্যাটের কিস্তির মূল্য নির্ধারিত সময়ে পরিশোধের ব্যর্থতায় বিলম্ব ফি ২০১৭ সালের ১ জুলাই থেকে ১২ শতাংশের জায়গায় ৯ শতাংশ করা হয়েছে এবং ফ্ল্যাট হস্তান্তরের পর অবশিষ্ট ৫০ শতাংশ মূল্যের বাৎসরিক কিস্তি সুবিধা ফি ১২ শতাংশের স্থলে ৯ শতাংশ করা হয়েছে।
উত্তরা অ্যাপার্টমেন্ট প্রকল্পে ‘এ’ ব্লকে যেসব সুবিধা থাকছে:
সমগ্র প্রকল্প এলাকার ৫৫ শতাংশ জমি খেলার মাঠ, পার্ক, সবুজায়ন, রাস্তা ইত্যাদির জন্য উন্মুক্ত রাখা হয়েছে। প্রকল্পের অভ্যন্তরে মসজিদ, কমিউনিটি সেন্টার, কিচেন মার্কেট, স্কুলের ব্যবস্থা রেখে একটি স্বয়ংসম্পূর্ণ অ্যাপার্টমেন্ট কমপ্লেক্স বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। যাবতীয় সার্ভিসেস লাইনসমূহ (পানি সরবরাহ, বিদ্যুৎ ইত্যাদি) ভূ-গর্ভস্থ লাইনের মাধ্যমে সঞ্চালিত হবে। টেকসই পানি ব্যবস্থাপনার বিষয়টি বিবেচনায় এনে প্রতিটি ভবনে আলাদা আলাদাভাবে বৃষ্টির পানি সংরক্ষণ করে শোধনের মাধ্যমে পুনঃব্যবহারের ব্যবস্থা থাকবে। ওয়াটার নেটওয়ার্কিং মডেলিংয়ের মাধ্যমে পানি সরবরাহের লাইন ডিজাইন করে এর প্রতিটি অংশের পানির চাপ নিয়ন্ত্রণ করা হবে। প্রকল্পের অভ্যন্তরে পর্যাপ্ত গাড়ি পার্কিংয়ের সংস্থান রয়েছে।
উত্তরা অ্যাপার্টমেন্ট প্রকল্পে ‘এ’ ব্লকের ভবনের অভ্যন্তরীণ সুবিধাদিঃ
‘এ’ ব্লকের প্রতিটি ভবনে একটি বেজমেন্ট, গ্রাউন্ড ফ্লোর ও ১৪টি ফ্লোর রয়েছে। ১৪টি ফ্লোরের প্রতিটিতে নেট ১২৭৬ বর্গফুট (গ্রস ১৬৫৪ বর্গফুট) এর ৬টি ফ্ল্যাট রয়েছে। অর্থাৎ প্রতিটি ভবনে ৮৪টি ফ্ল্যাট রয়েছে। ভবনসমূহের নিচ তলায় মাল্টিপারপাস হল, গার্ডরুম, রিসেপশন লবি, ড্রাইভারস ওয়েটিং রুম, টয়লেট ইত্যাদির ব্যবস্থা রয়েছে। ভবনের বেজমেন্ট ও গ্রাউন্ড ফ্লোরে গাড়ী পার্কিং এর ব্যবস্থা রয়েছে। প্রতিটি ভবনে ১টি প্রধান সিঁড়ি,২টি অগ্নিনির্বাপক সিঁড়ির ব্যবস্থা রয়েছে। প্রতিটি ভবনে বিশ জন ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন দুইটি উন্নতমানের লিফট থাকবে। প্রতিটি ভবনে ২৫০ কেভিএ জেনারেটর ও ৮৫০ কেভিএ সাব-স্টেশন স্থাপন করা হবে। প্রতিটি ফ্ল্যাটে ৩টি বেড রুম, একটি লিভিং রুম, একটি ডাইনিং রুম, একটি ফ্যামিলি লিভিং, ৪টি বারান্দা, ৪টি টয়লেট ও কিচেন রয়েছে।

মন্তব্য