আমাদের মেইল করুন dhunatnews@gmail.com
ডিএসসিসি’র পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা পেলেন আবাসিক ভবন

সবার জন্য আবাসন নিশ্চিত করার ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ক্ষমতায় আসার পর থেকেই ঘোষণা দিয়েছেন কেউ খোলা আকাশের নিচে ঘুমাবে না। সবার জন্য আবাসন হবে। সেই ঘোষণার আরও এক ধাপ এগিয়ে এবার ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) পরিচ্ছন্নতা কর্মীদের জন্য চারটি আবাসিক ভবন উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সোমবার (০৮ অক্টোবর) বিকেলে গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ধলপুর ও দয়াগঞ্জে নবনির্মিত ৪টি আবাসিক ভবনের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী। পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের জন্য নির্মিত এসব ভবনে আধুনিক সব সুযোগ সুবিধা রয়েছে।

ডিএসসিসি সূত্র জানিয়েছে, ২০১২ সালের ২৪ জানুয়ারি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) সভায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের পুনর্বাসনের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ ভবন ভেঙে নতুন ভবন নির্মাণের নির্দেশ দেন। এরপর আগের ঝুঁকিপূর্ণ ১২টি ৪তলা ভবন ভেঙে ১৩টি ১০তলা ভবনে মোট এক হাজার ১৪৮টি ফ্ল্যাট নির্মাণের জন্য ডিপিটি প্রণয়ন করা হয়। পরে ২০১৩ সালের ১ অক্টোবর প্রকল্পটি অনুমোদন দেওয়া হয়। পুরো প্রকল্পে ব্যয় ধরা হয়েছে ১৯০ কোটি টাকা। মোট ১৩টি ভবনের মধ্যে দয়াগঞ্জে ৫টি ভবনে ৪৪৩টি ফ্ল্যাট, ধলপুরে ৫টি ভবনের ৪৮০টি ফ্ল্যাট এবং সূত্রাপুরে ৩টি ভবনে ২২৮টি ফ্ল্যাট থাকছে। প্রতিটি ফ্ল্যাটের আকার ৪৭২ বর্গফুট।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ডিএসসিসি মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সহযোগিতা পেয়ে দক্ষিণ সিটি করপোরেশন আজ ঘুরে দাঁড়িয়েছে। এরইমধ্যে শহরের ইতিবাচক পরিবর্তন শুরু হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর সহযোগিতা অব্যাহত থাকলে ঢাকা শহরে আরও পরিবর্তন আসবে।

২০০৫ সালে ঢাকা সিটি করপোরেশনের অধীনে ‘দয়াগঞ্জ, ধলপুর ও সূত্রাপুর ক্লিনার্স কলোনি নির্মাণ’ শীর্ষক একটি প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়। যার ব্যয় ধরা হয়েছিল ২০ কোটি ৯৩ লাখ টাকা। প্রকল্পের আওতায় ১২টি ৪তলা ভবন নির্মাণের কথা থাকলেও কাজ শুরু হয় ৯টির। কিন্তু ২০০৭ সালের মে মাসে একটি ভবন ধসে পড়লে বন্ধ হয়ে যায় এগুলোর নির্মাণ কাজ। বাংলানিউজ

মন্তব্য