আমাদের মেইল করুন abasonbarta2016@gmail.com
ক্ষতিপূরণের টাকা বাড়াতে জমিতে রাতারাতি ভবন

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে চার লেন সড়ক নির্মাণের লক্ষ্যে ভূমি অধিগ্রহণকে কেন্দ্র করে জমির মূল্য বাড়াতে রাস্তার দুই পাশের ভূমিতে রাতারাতি স্থাপনা ও ভবন নির্মাণের ঘটনা উদ্‌ঘাটন করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

রোববার দুদকের হটলাইনে (১০৬) অভিযোগ পেয়ে মহাপরিচালক (প্রশাসন) মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরীর নির্দেশে সহকারী পরিচালক মো. জাহিদ কালামের নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি দল রূপগঞ্জ উপজেলার ভোলাব ইউনিয়নের তাওড়া মৌজায় অভিযান চালিয়ে দুর্নীতির এই ঘটনা উদঘাটন করেছে। দুদকের দল রূপগঞ্জের সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আসাদুজ্জামানের উপস্থিতিতে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে এবং অভিযোগের সত্যতা পায়।

অভিযানে দুদকের তদন্ত দল দেখতে পায়, নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে অত্যন্ত দ্রুতগতিতে ভবন ও স্থাপনা নির্মাণ করা হচ্ছে। ইতিমধ্যে একই কায়দায় ১০-১২টি ভবন নির্মাণ করা হয়েছে। স্থানীয় একটি সিন্ডিকেট এ দুর্নীতিতে জড়িত বলে জানা যায়।

জমি অধিগ্রহণ হবে, তাই ক্ষতিপূরণ হিসেবে বেশি টাকা পেতে স্থাপনা তৈরি করছেন মালিকেরা। ছবি: প্রথম আলো

জমি অধিগ্রহণ হবে, তাই ক্ষতিপূরণ হিসেবে বেশি টাকা পেতে স্থাপনা তৈরি করছেন মালিকেরা। ছবি: প্রথম আলোএ অভিযান প্রসঙ্গে দুদকের মহাপরিচালক (প্রশাসন) মোহাম্মাদ মুনীর চৌধুরী বলেন, ‘জমির প্রকৃত স্ট্যাটাস বা প্রকৃতির ওপর ক্ষতিপূরণ নির্ধারণ করতে হবে। কোনোভাবেই ভূমির শ্রেণি রাতারাতি পরিবর্তন করে সরকারি অর্থ আত্মসাতের সুযোগ দেওয়া হবে না। এ দুর্নীতি রুখতে দুদক কঠোর নজরদারি করবে, আরও অভিযান চালাবে।’

স্থানীয় এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, এই ঘটনার সঙ্গে জেলা প্রশাসনের ভূমি অধিগ্রহণ অফিসের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা জড়িত।

রূপগঞ্জের সহকারী কমিশনার মো. আসাদুজ্জামান জানান, নরসিংদীর পাঁচদোনা থেকে শুরু হয়ে কাঞ্চন সেতু পর্যন্ত একটি চার লেন সড়ক হবে। এই সড়কের নরসিংদী অংশের জমি অধিগ্রহণের কাজ চলমান এবং বেশ কিছু জমির মালিককে ক্ষতিপূরণ দেওয়া হয়েছে। নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের তাওড়া অংশে এখনো অধিগ্রহণ শুরু হয়নি। যেহেতু পাশের এলাকায় জমি অধিগ্রহণ শুরু হয়েছে, তাই অধিক মুনাফার লোভে একটি চক্র সেখানে স্থাপনা তৈরি শুরু করেছে। এ বিষয়ে অবহিত করে জেলা প্রশাসক বরাবর প্রতিবেদন পাঠানো হবে।

রূপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আবুল ফতে মোহাম্মদ শফিকুল ইসলাম জানান, এ বিষয়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি) প্রতিবেদন দিলে সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে। প্রথম আলো

মন্তব্য