আমাদের মেইল করুন dhunatnews@gmail.com
দেশের প্রথম অনলাইন আবাসন মেলা শুরু

মেলা দেখতে আপনাকে কোথাও যেতে হবে না। আপনার স্মার্টফোন বা কম্পিউটারে প্রথম আলোর ওয়েবসাইটে যেতে হবে। সেখানে গেলেই পাওয়া যাবে জমি, বাড়ি ও ফ্ল্যাটের বিশাল সমাহার। আর সেখান থেকেই আপনি বেছে নিতে পারবেন আপনার পছন্দের ঘর।

কাল বুধবার শুরু হচ্ছে দেশে প্রথমবারের মতো আয়োজিত অনলাইন আবাসন মেলা। ‘ঘরে বসেই ঘর খুঁজুন’ শিরোনামের এই মেলায় দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের শীর্ষস্থানীয় ৪৫টি আবাসন প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে। ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট, রাজশাহী, বরিশাল, কুমিল্লা ও বগুড়ার নানা আবাসন প্রকল্প এই মেলায় থাকছে। দেশের বিভিন্ন স্থানের ৭ হাজার ফ্ল্যাট, সাড়ে ৩ লাখ কাঠা জমি, ১৫ লাখ বর্গফুট বাণিজ্যিক স্পেস থাকছে বিক্রির জন্য।

২৩ থেকে ৩০ জানুয়ারি চলবে এই মেলা। মেলায় আগ্রহী ব্যক্তিরা প্রকল্পগুলোর বিস্তারিত দেখতে পারবেন। চাইলে অনলাইনেই প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবেন। এ ছাড়া সাইটে গেলে সকাল ১০টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত সরাসরি চ্যাট করে তথ্য জেনে নেওয়া যাবে।

আজ মঙ্গলবার বিকেলে রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে মেলার উদ্বোধন করা হয়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে মেলার টাইটেল স্পনসর বার্জারের প্রজেক্ট, প্রোলিংস ও ডেকোর বিভাগের প্রধান হাসানুজ্জামান বলেন, ভার্চ্যুয়াল আবাসন মেলা একটি নতুন ধারণা। প্রথম আলো সব সময়ই নতুন ধারণা সামনে নিয়ে আসে। তাঁর প্রত্যাশা, সামনের দিনগুলোতে এটি আবাসন খাত ও এর সঙ্গে যাঁরা যুক্ত আছেন তাঁদের জন্য নতুন প্ল্যাটফর্ম হয়ে উঠবে। এর মাধ্যমে নতুন সম্ভাবনাও তৈরি হয়ে গেছে বলে মনে করেন তিনি। তবে তিনি বলেন, এখানে আসা প্রকল্পগুলো সম্পর্কে মানুষের নেতিবাচক ধারণা যেন কোনোভাবেই তৈরি না হয়। তাহলে সব আয়োজনই বৃথা হয়ে যেতে পারে।

মেলার স্ট্র্যাটেজিক পার্টনার আবাসন ব্যবসায়ীদের সংগঠন রিয়াল এস্টেট অ্যান্ড হাউজিং অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (রিহ্যাব)। সংগঠনটির সহসভাপতি লিয়াকত আলী ভূইয়া মেলার জন্য শুভকামনা জানিয়ে বলেন, প্রথম আলো নতুন যে ধারণাটি নিয়ে এসেছে, সেটাকে সাধুবাদ। দেশের আবাসন খাতের সঙ্গে ২৫০টি শিল্প প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত। তাই আবাসন খাত ভালো থাকলে এই খাতগুলোও ভালো থাকবে। ফেব্রুয়ারির প্রথম সপ্তাহে রিহ্যাবের যে আবাসন মেলা হচ্ছে, সেখানেও এই ভার্চ্যুয়াল মেলা বড় ভূমিকা রাখবে।

প্রথম আলো সম্পাদক মতিউর রহমান বলেন, বাংলাদেশের প্রধান একটি শিল্প আবাসন শিল্পকে গুরুত্ব দিয়েই প্রথম আলো এ উদ্যোগ নিয়েছে। মানুষ এখন নতুন নতুন প্রযুক্তির সঙ্গে সম্পৃক্ত হয়ে পড়েছে। তাই প্রতিটি ব্যবসাতেই প্রযুক্তির ছোঁয়া লাগছে। এবারের আয়োজন পর্যালোচনা করে সামনের দিনেও এ ধরনের উদ্যোগ নেওয়ার কথা জানান তিনি।

র‍্যানকন গ্রুপের পরিচালক মাশিদ রহমান বলেন, কিছুদিন আগেও আবাস খাতে নেতিবাচক অবস্থা ছিল। কিন্তু এটা আবারও ঘুরে দাঁড়িয়েছে। এই খাতকে এগিয়ে নিতে সবার একসঙ্গে কাজ করা উচিত বলে মন্তব্য করেন তিনি।

রিহ্যাবের পরিচালক ও মেলা কমিটির চেয়ারম্যান শাকিল কামাল চৌধুরী বলেন, রিহ্যাব মেলার আগে আগে প্রথম আলোর এ আয়োজনের সুফল পাওয়া যাবে। এই খাত নানা সমস্যা কাটিয়ে ঘুরে দাঁড়িয়েছে। সবার সহায়তা নিয়ে সামনের দিনগুলোতে আরও এগিয়ে নেওয়া সম্ভব হবে বলে মনে করেন তিনি।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আবাসন খাতের সঙ্গে সম্পৃক্ত ব্যক্তিরা। সোনারগাঁও হোটেল, ঢাকা, ২২ জানুয়ারি। ছবি: আবদুস সালাম

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আবাসন খাতের সঙ্গে সম্পৃক্ত ব্যক্তিরা। সোনারগাঁও হোটেল, ঢাকা, ২২ জানুয়ারি। ছবি: আবদুস সালাম

 

 

 

রিহ্যাবের সহসভাপতি কামাল মাহমুদ আবাসন খাতকে এগিয়ে নিতে সরকারের আরও সহায়তা প্রত্যাশা করেন। গণমাধ্যমে আবাসন খাতের ইতিবাচক তথ্য তুলে ধরে ভাবমূর্তি বাড়াতে সহায়তার অনুরোধ জানান। তাঁর মতে, সবাই মিলে কাজ করলে দেশের অর্থনীতিতে বড় অবদান রাখা এই খাত আরও এগিয়ে যাবে। একই সঙ্গে সমৃদ্ধ হবে অর্থনীতি।

মেইলর ডেকোর ব্যবস্থাপনা পরিচালক মাহফুজুর রহমান মনে করেন, প্রথম আলোর এই উদ্যোগ আবাসন খাতকে এগিয়ে নিতে বড় ভূমিকা রাখবে।

অনুষ্ঠানের শুরুতে প্রথম আলোর ডিজিটাল বিজনেসের ব্যবস্থাপক জাবেদ সুলতান মেলার নানা দিক তুলে ধরেন। প্রথম আলো ডিজিটালে আবাসন সংস্থাগুলো কী ধরনের সুবিধা পেতে পারে, সে তথ্য তুলে ধরেন। অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন মেরিন গ্রুপের চেয়ারম্যান নুসরাত ই খুদা,অলিম্পিয়া হোল্ডিংসের মো. জামিল উদ্দিন প্রমুখ।

বার্জার-প্রথম আলো আবাসন মেলার সহযোগী হিসেবে আরও আছে র‍্যানকন রিয়াল এস্টেট ডিভিশন, কনকর্ড গ্রুপ, ওরিয়ন গ্যাস, মেইলিওর ডেকো, আইডিএলসি ও মেরিন গ্রুপ। সম্প্রচার সহযোগী নাগরিক টিভি ও এবিসি রেডিও। প্রথম আলো

মন্তব্য