আমাদের মেইল করুন abasonbarta2016@gmail.com
ঘোষণা
আবাসন সম্পর্কিত যেকোনো নিউজ পাঠাতে পারেন আমাদের এই মেইলে- abasonbarta2016@gmail.com
১০ বছরেও পায়নি ঘোষিত প্লট

পিলখানায় বিডিআর বিদ্রোহের ১০ বছর পার হলেও সে ঘটনায় নৃশংসভাবে শহীদ হওয়া বিডিআর সদস্য (বর্তমান বিজিবি) তৎকালীন কেন্দ্রীয় সুবেদার মেজর নুরুল ইসলামের পরিবার আজও সরকার ঘোষিত আবাসন সুবিধা হিসেবে সরকারি প্লট পায়নি। যদিও এ ঘটনায় শহীদ হওয়া অন্য ৫৭ সেনা পরিবারের সবাই এ সুবিধা পেয়েছেন। আমলাতান্ত্রিক জটিলতা আর এক সংস্থা থেকে অন্য সংস্থায় চিঠি চালাচালিতে কেটে গেছে প্রায় ১০ বছর। এ জন্য শহীদ নুরুল ইসলামের পরিবার সমস্যা সমাধানে স্বয়ং প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছে। এ বিষয়ে বিজিবি সদর দফতর, গণপূর্ত মন্ত্রণালয় ও রাজউক গত ১০ বছরে দফায় দফায় চিঠি চালাচালি করে আইনের সীমাবদ্ধতা আর আমলাতান্ত্রিক জটিলতার অজুহাতে এ সমস্যার সমাধান করতে পারেনি বলে পরিবারের অভিযোগ। নুরুল ইসলামের ছেলে আশরাফুল আলম হান্নান বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, একমাত্র আমরাই এখনো প্লট পাইনি। অথচ অন্য সবাই প্লট পেয়েছেন। অবশ্য আমরা অন্য সব সুযোগ-সুবিধা পেয়েছি। তিনি বলেন, বিদ্রোহের পক্ষে জওয়ানদের ব্যাপক বিশৃঙ্খলার মধ্যেও একমাত্র আমার বাবাই এর বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছিলেন। পিলখানায় সবাই যখন নিরাপদ আশ্রয় খুঁজে নিচ্ছিলেন, তখন নিশ্চিত মৃত্যু জেনেও বিপথগামী সশস্ত্র জওয়ানদের প্রতিরোধ করতে এগিয়ে যান তিনি।

পরে আমার বাবাকে বিদ্রোহীরা নৃশংসভাবে হত্যা করে গণকবরে নিক্ষেপ করে। নুরুল ইসলামের পরিবার আরও জানায়, প্লট প্রদানে ব্যবস্থা নিতে ২০১৩ সাল থেকে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগে চিঠি লেখালেখি হলেও বিষয়টি সমাধান হয়নি। এর আগে বিষয়টির সমাধানের জন্য নুরুল ইসলামের পরিবার বিজিবির মহাপরিচালকের সঙ্গেও সাক্ষাৎ করে। জানা গেছে, বিডিআর বিদ্রোহের তদন্ত কমিটির সুপারিশের আলোকে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে বিজিবিতে চিঠি দেওয়া হয়। কিন্তু ডিওএইচএস হতে বিজিবির জন্য প্লট দেওয়ার মতো সুযোগ না থাকায় বিজিবির পক্ষ থেকে বিষয়টি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে অবহিত করলে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে পুনরায় গণপূর্ত মন্ত্রণালয়কে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার অনুরোধ করা হয়। গণপূর্ত মন্ত্রণালয় রাজউক চেয়ারম্যানকে বিষয়টি নিষ্পত্তির নির্দেশনা দিলেও রাজউক বিষয়টির কোনো সমাধান করেনি বলে জানা গেছে। বিডি-প্রতিদিন