আমাদের মেইল করুন abasonbarta2016@gmail.com
৭৪৮ টি ফ্ল্যাট হচ্ছে ইস্কাটন ও ধানমণ্ডিতে

সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের আবাসন সংকট নিরসনে রাজধানীর আকর্ষণীয় লোকেশন ইস্কাটন, ধানমণ্ডির সোবহানবাগ ও তেজগাঁওয়ে ৭৪৮টি ফ্ল্যাট নির্মাণ করবে সরকার। এক হাজার ৩২৮ কোটি টাকা ব্যয়ের এ প্রকল্পে আবাসন সুবিধার সঙ্গে খেলার মাঠ, সার্ভিস সড়কসহ আধুনিক সব সুযোগ-সুবিধা থাকবে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, ইস্কাটনে সরকারি অফিসার্স কোয়ার্টার রয়েছে। সোবহানবাগেও আছে সরকারি আবাসন ভবন। এসব পুরনো ভবন ভেঙে সেখানে সুউচ্চ আধুনিক ভবন নির্মাণ করা হবে। এ ছাড়া, তেজগাঁও এলাকায় সরকারের খাসজমিতেও চাকরিজীবীদের জন্য ফ্ল্যাট নির্মাণ করা হবে। এ জন্য সম্প্রতি গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় আলাদা তিনটি প্রকল্প নিয়ে প্রস্তাবগুলো পরিকল্পনা কমিশনে পাঠিয়েছে। এরই মধ্যে উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাবনা (পিইসি) সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, শিগগিরই প্রকল্পগুলো চূড়ান্ত অনুমোদন পেতে পারে।

পিইসি সভায় পরিকল্পনা কমিশনের ভৌত অবকাঠামো বিভাগের সদস্য সুবীর কিশোর চৌধুরী বলেন, সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সংখ্যা বাড়লেও আবাসনের সুবিধা বাড়েনি। এতে আবাসন সংকট বেড়েছে। জায়গা সংকটের কারণে কম উচ্চতার পুরনো ভবন ভেঙে বহুতল ভবন নির্মাণ করতে চায় গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়।

তিনি বলেন, প্রকল্পগুলোতে পর্যাপ্ত খেলার জায়গা, জলাবদ্ধতা নিরসনে প্রয়োজনীয় সুবিধা রাখার কথা বলা হয়েছে। এ ছাড়া যানজট কমাতে প্রকল্প এলাকায় মূল সড়কের পাশে সার্ভিস রোড নির্মাণের কথাও বলা হয়েছে।

গৃহায়ণ কর্তৃপক্ষের তথ্য মতে, ঢাকা মহানগরীতে এক লাখ ৪৯ হাজার সরকারি চাকরিজীবী রয়েছেন। কিন্তু আবাসন সুবিধা আছে ১৮ হাজার। আবাসন চাহিদা মেটাতে গত তিন বছরে বেশ কয়েকটি প্রকল্প নেওয়া হয়েছে। সেগুলোর কাজ শেষ হলে পাঁচ হাজার ২২৫টি ফ্ল্যাট যোগ হবে।

সংশ্লিষ্টরা জানান, ইস্কাটন অফিসার্স কোয়ার্টার এলাকায় সাড়ে ১১ একর জমিতে চার থেকে ছয় তলাবিশিষ্ট ৩১টি ভবন রয়েছে। সেগুলো ভেঙে নির্মাণ করা হবে ১৩ তলার ১০টি ভবন। মোট ফ্ল্যাট হবে ৪৮০টি। এতে ব্যয় হবে ৯৬৭ কোটি টাকা। ২০২১ সাল নাগাদ এই প্রকল্পের কাজ শেষ হবে বলে আশা করছে গৃহায়ণ কর্র্তৃপক্ষ।

প্রকল্প প্রস্তাবে বলা হয়েছে, ১৮০০ বর্গফুটের আয়তন বিশিষ্ট পাঁচটি ১৩ তলা ভবনে ২৪০টি ফ্ল্যাট, ১৫০০ বর্গফুটের পাঁচটি ১৩ তলা ভবনে ২৪০টি ফ্ল্যাট নির্মিত হবে। এর বাইরে দুটি তিনতলা বিশিষ্ট সার্ভিস মেইটেইনেন্স ভবন, একটি ছয়তলাবিশিষ্ট কমিউনিটি হল নির্মাণ করা হবে।

সোবহানবাগে ‘সরকারি কর্মকর্তাদের জন্য বহুতল আবাসিক অ্যাপার্টমেন্ট নির্মাণ’ প্রকল্পের আওতায় তিনটি ১৩ তলা ভবনে ১৪৫টি ফ্ল্যাট নির্মিত হবে। অন্যান্য সুবিধা নিশ্চিত করতে একটি পাঁচতলা বিশিষ্ট কমিউনিটি ভবন, একটি চারতলা বিশিষ্ট ইলেকট্রিক ল্যাব, স্টেশন ও এসটিপি ভবন, পার্কিং সুবিধা নিশ্চিত করতে সাততলা ভবন নির্মাণ করা হবে। প্রকল্পের আওতায় ১৮০০ বর্গফুটের দুটি ১৩ তলা ভবন ও ১৫০০ বর্গফুটের একটি ১৩ তলা ভবন নির্মিত হবে। সোবহানবাগে এই অ্যাপার্টমেন্ট নির্মাণ প্রকল্পে ব্যয় হবে ২৫৭ কোটি টাকা। অন্যদিকে, তেজগাঁও শিল্পাঞ্চলে ১২৩টি ফ্ল্যাট নির্মাণ করা হবে। কমিশন জানায়, পাকিস্তান আমলের ‘গ্যামন পূর্ব পাকিস্তান লিমিটেড’ নামক কোম্পানির সম্পত্তি স্বাধীনতার পর ‘গ্যামন বাংলাদেশ লিমিটেড’ নামে কোম্পানির অধীনে ছিল। ২০১৪ সালে এই সম্পত্তিকে পরিত্যক্ত হিসেবে সরকারি সম্পদ হিসেবে অধিগ্রহণ করা হয়। পরে সেখানে ২০ তলা ভবন নির্মাণের চিন্তা করেছিল গৃহায়ন কর্র্তৃপক্ষ। তবে সিভিল এভিয়েশনের আপত্তিতে উচ্চতা কমিয়ে ১৩ তলায় নামানো হয়েছে। ১০৪ কোটি টাকা ব্যয়ে এ ভবন নির্মাণ শেষ হবে ২০২১ সালে।

শেয়ার করুন