আমাদের মেইল করুন abasonbarta2016@gmail.com
অতিরিক্ত নিবন্ধন ফি’তে মলিন পুরানো ফ্ল্যাটের চাহিদা

তুলনামূলক কম দামের কিছুটা পুরানো ফ্ল্যাটের চাহিদা থাকলেও অতিরিক্ত নিবন্ধন ফি’র কারণে সম্প্রসারিত হচ্ছেনা আবাসন খাতের সেকেন্ডারি মার্কেট। আবাসন ব্যবসায়ীদের সংগঠন রিহ্যাব বলছে, ফ্ল্যাটের নিবন্ধন ফি কমিয়ে আনলে এ খাতে বেচাকেনা বাড়বে, যার সুফল পাবে ক্রেতা-বিক্রেতা উভয়েই। আর জাতীয় রাজস্ব বোর্ড জানিয়েছে, পুরানো ফ্ল্যাটের নিবন্ধন ফি কমিয়ে আনার বিষয়টি পর্যালোচনা করা হবে।

নিজস্ব একটি আবাসনের ব্যবস্থা করতে শহুরে নাগরিকরা ফ্ল্যাট কেনার চেষ্টা করেন। চকচকে নতুন একটি ফ্ল্যাট কিনতে গিয়ে সাধ ও সাধ্যের সমন্বয় করতে না পেরে অনেকেই কিছুটা পুরানো ফ্ল্যাট কিনে থাকেন। আর এধরনের ফ্ল্যাটের চাহিদা বাজারে নেহায়েত কম নয় বলে জানালেন আবাসন খাতের এক অনলাইন মার্কেট প্লেসের এই কর্মকর্তা।

বিপ্রপার্টি ডট কমের ব্র্যান্ড ম্যানেজার অ্যান্ড মার্কেট অ্যানালিস্ট অ্যান্ডি অগাস্টিন রোজারিও বলেন, অনেক কারণেই সেকেন্ডারি ফ্ল্যাট চাচ্ছে। অনেকের ডাটা পেয়েছি যারা সেকেন্ডারি কিনতে আগ্রহী।

মধ্যবিত্তের আগ্রহ বাড়লেও আয়তন ভেদে পুরনো ফ্ল্যাটের নিবন্ধন ফি ও নতুনের মতোই ১২ থেকে সাড়ে ১৪ শতাংশ পর্যন্ত গুণতে হয়। এধরনের নীতি আবাসন খাত সম্প্রসারণের পথে বাধা বলে মনে করেন ব্যবসায়ীরা। তারা বলছেন পুরাতন গাড়ির মালিকানা বদলে যেমন নামমাত্র ফি পরিশোধ করতে হয় একই ব্যবস্থা থাকা উচিত আবাসনেও।

রিহ্যাবের সভাপতি আলমগীর শামসুল আলামিন বলেন, নতুন ফ্ল্যাটে সব খরচ করার পরেও সেকেন্ডারিতে আবার যদি দিতে হয় তা হয় অযৌক্তিক। আমরা বলেছি সামান্য একটা চার্জ দিয়ে ব্যবস্থা করা।

পুরনোর পাশাপাশি নতুন ফ্ল্যাটের নিবন্ধনে দক্ষিণ এশিয়ার অন্য দেশগুলোর তুলনায় বাংলাদেশে ক্রেতাদের প্রায় দ্বিগুণ অর্থ গুণতে হয়। নিবন্ধনের খরচ পার্শ্ববর্তী দেশগুলোর সাথে মিল রেখে নামিয়ে আনতে রিহ্যাবের সুপারিশ এখন জাতীয় রাজস্ব বোর্ডে।

এনবিআরের সদস্য রেজাউল হাসান বলেন, তারা চাচ্ছেন ৫ বছরের পুরনো ফ্ল্যাট বিক্রি করলে ৫ বছর পরের যে দাম হয় তার ব্যবস্থা করা। সেই আবেদন তারা করেছেন, আমরা সেটা পরীক্ষা নিরীক্ষা করছি।

রিহ্যাবের তথ্য মতে, শুধুমাত্র অতিরিক্ত ফি’র কারণে অনেক ফ্ল্যাটই বিক্রির পরও থেকে যাচ্ছে অনিবন্ধিত। এতে তৈরি হচ্ছে ভবিষ্যতে নানা ধরণের আইনি জটিলতার ঝুঁকি। সময়টিভি

শেয়ার করুন