আমাদের মেইল করুন abasonbarta2016@gmail.com
রিহ্যাব চট্টগ্রাম ফেয়ারে  ৪ দিনে মোট বিক্রি ৩৭৫ কোটি টাকা

এবারের রিহ্যাব চট্টগ্রাম ফেয়ারে ৫৭০টি ফ্ল্যাট ও ২১০টি প্লট বিক্রি বাবদ সর্বমোট ৩৭৫ কোটি টাকা বিক্রি হয়েছে বলে জানালেন রিহ্যাব নেতৃবৃন্দ। মেলা প্রাঙ্গণে আয়োজিত রিহ্যাবের সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়। ৪ দিনব্যাপী রিহ্যাব চট্টগ্রাম ফেয়ারের শেষ দিনে  রোববার এ সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।

নগরীর পাঁচ তারকা হোটেল রেডিসন ব্লুতে গত ১৪ মার্চ থেকে এ মেলা শুরু হয়। রিহ্যাবের ভাইস প্রেসিডেন্ট ও রিহ্যাব চট্টগ্রাম রিজিয়নের চেয়ারম্যান আবদুল কৈয়ূম চৌধুরী মেলার সার্বিক বিষয়ে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করেন।

এতে তিনি বলেন, মেলার শুরু থেকে বৃহস্পতি, শুক্র ও শনিবার প্রচুর ক্রেতা দর্শনার্থী মেলা প্রাঙ্গণে এসেছেন। মেলার শেষ দিনে সবচেয়ে বেশি ফ্ল্যাট ও প্লট বিক্রি হয়েছে। এ তিনদিনে অনেক ক্রেতা বুকিংও দিয়েছেন। তিনি আরো বলেন, দেশের আবাসন খাতের অবস্থা এখন অনেক ভাল। যার প্রত্যক্ষ প্রতিফলন এবারের রিহ্যাব চট্টগ্রাম ফেয়ার-২০১৯। ফেয়ারের ৪ দিনই ক্রেতা দর্শনার্থীর উল্লেখযোগ্য সংখ্যায় উপস্থিতি; বিশেষ করে শুক্র, শনি এবং গতকাল রবিবার মেলার প্রবেশপথে দর্শনার্থীদের দীর্ঘ সারি ও উপচে পড়া ভিড় আমাদের আশান্বিত করেছে।

তিনি জানান, ফেয়ারের ৪ দিনে প্রায় ১২ হাজার ক্রেতা দর্শনার্থী মেলা প্রাঙ্গণে এসেছেন। ফেয়ারে অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠানসমূহ ক্রেতাদের জন্য যে সকল অফার নিয়ে এসেছিল মেলা চলাকালীন সাপ্তাহিক ও সরকারি ছুটির কারণে ব্যাংক বন্ধ থাকায় তা দিতে পারেনি। ফেয়ার শেষ হওয়ার পরেও আগামী ৭ দিন কোম্পানির নিজস্ব অফিসে সে সকল সুযোগ সুবিধা দেওয়া হবে। এসময় তিনি চট্টগ্রাম রিহ্যাব ফেয়ার সফলভাবে সম্পন্ন করার জন্য ক্রেতা, দর্শনার্থী, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকসহ সংশ্লিষ্ট সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জানান।

এসময় উপস্থিত ছিলেন রিহ্যাবের পরিচালক ও চট্টগ্রাম রিজিওনাল কমিটির কো-চেয়ারম্যান (১) ইঞ্জিনিয়ার দিদারুল হক চৌধুরী, রিহ্যাবের পরিচালক ও চট্টগ্রাম রিজিওনাল কমিটির কো-চেয়ারম্যান (২) মাহবুব সোবহান জালাল তানভির। আরও উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম রিজিওনাল কমিটির সদস্য মিজানুর রহমান, রেজাউল করিম, আবদুল্লাহ আল মামুন, মোরশেদুল হাসান, নাজিম উদ্দিন, ফেয়ার অর্গানাইজিং কমটির সদস্য এয়াছিন চৌধুরী, ইঞ্জিনিয়ার শেখ নিজাম উদ্দিন, মহিউদ্দিন খসরু, খুরশেদুর রহমান, শহীদুল ইসলাম ও সৈয়দ ইরফানুল আলম।

শেয়ার করুন