আমাদের মেইল করুন dhunatnews@gmail.com
ঘোষণা
আবাসন সম্পর্কিত যেকোনো নিউজ পাঠাতে পারেন আমাদের এই মেইলে- abasonbarta2016@gmail.com
২০ কোটি টাকার সফটওয়্যার চুরির মামলায় ইঞ্জিনিয়ার গ্রেফতার

প্রতারণা করে দেশের সুনামধন্য  সফটওয়্যার ডেভেলপমেন্ট প্রতিষ্ঠান বিগব্যাং কম্পিউটারস লিমিটেডের প্রায় ২০ কোটি টাকার সফটওয়্যার চুরি করেছে শাহজালাল শাহিন নামে একজন ইঞ্জিনিয়ার। প্রথমে জিডি এবং পরবর্তীতে মামলা করায় গত শুক্রবার তেজগাও থানা পুলিশ ধৃত সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার শাহজালাল শাহিনকে মিরপুর মডেল থানার সহায়তায় মিরপুর মনির উদ্দিন মাকেট থেকে গ্রেফতার করে। পুলিশের হাতে আটক শাহজালাল শাহিন চুয়াডাঙ্গার দামুরহুদা থানার আজমপুর গ্রামের মৃত আজহারুল হকের সন্তান।

মামলা সূত্রে জানা যায়, শাহজালাল শাহিন বিগব্যাং কম্পিউটারস লিমিটেড এ প্রায় দশ বছর যাবৎ সিনিয়র সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার হিসেবে কর্মরত ছিলেন। তার মাধ্যমে বিগব্যাগ কম্পিউটারস লিমিটেড প্রায় অর্ধশতাধিক প্রতিষ্ঠানে বিক্রিয়োত্তর সেবা প্রদান করা হতো। গত ১৭ অক্টোবর অফিস চলাকালীন দুপুর দেড়টার দিকে অফিসের গুরুত্বপূর্ণ প্রায় ২০ কোটি টাকা মুল্যের সফটওয়্যার, সফটওয়্যারের সোর্সকোড এবং নগদ পঞ্চাশ হাজার টাকা চুরি করে পালিয়ে যায়। তার সাথে ওই অফিসের কর্তৃপক্ষ যোগাযোগ করলে তাতে সে কোনো সাড়া দেয় নি। পরবর্তীতে বিগব্যাং কম্পিউটারস লিমিটেডের পক্ষ থেকে তেজগাঁও থানায় জিডি করা হয় এবং বেসিসে (বাংলাদেশে সফটয়্যার এসোসিয়েশন) অভিযোগ দায়ের করা হয়। সবশেষ ৫ ডিসেম্বর আসামীর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়। মামলার পর আসামীকে আটক করে তেজগাঁও থানা পুলিশ।

বিগব্যাং কম্পিউটারস লিমিটেড এর সাথে যোগাযোগ করা হলে কোম্পানির জিএম মাহবুবুর রহমান আবাসন বার্তাকে জানান, ‘শাহজালাল শাহিন বিগব্যাগ কম্পিউটারস-এ দশ বছর যাবত চাকুরি করেছেন। চাকুরিরত অবস্থায় তার মাধ্যমে গুরুত্বপূর্ণ ল্যাব ম্যানেজমেন্ট সফটওয়্যার এর বিক্রয় উত্তর সেবার জন্য প্রায় অর্ধ শতাধিক হসপিটাল এবং ডায়াগনস্টিক সেন্টারে পাঠানো হত। আমরা জানতে পেরেছি সে আমাদের এখানে কর্মরত অবস্থায় এই সফটওয়্যার বিভিন্ন জায়গায় চুরি করে বিক্রি করেছেন এবং অর্থ আত্মসাত করেছেন। একই সঙ্গে তার মাধ্যমে সেবা দেওয়া প্রতিষ্ঠানগুলোতে চলমান সফটওয়্যারগুলোর সোর্স কোড বুঝিয়ে না দিয়ে বেশ কিছু সফটওয়্যার চুরি করে নিয়ে যায়। সোর্স কোড বুঝিয়ে না দেওয়ায় হাসপাতালে চলমান সফটওয়্যারগুলো অধিক অর্থ ব্যয় করে বিকল্প পদ্ধতিতে চালানো হচ্ছে। সোর্স কোড বুঝিয়ে না পেলে মারাত্মক ক্ষতির মুখে পড়বে অনেক হাসপাতাল, ডায়াগনস্টিক সেন্টার, প্যাথলজিক্যাল ল্যাব ও বিগব্যাং কম্পিউটারস লিমিটেড।’

মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘আমাদের সফটওয়্যার কপি রাইট করা। আমরা আপনাদের গণমাধ্যমকে অনুরোধ করতে চাই, যে কোন প্রতিষ্ঠান যেন তার নিকট থেকে এই সফটওয়্যার ক্রয় এবং সেবা গ্রহণ না করেন ও প্রতারণার শিকার না হন। তার মাধ্যমে সফটওয়্যার ক্রয় এবং সেবা গ্রহণ করে ক্ষতির সম্মুখিন হলে বিগব্যাং কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবে না এবং কোন প্রতিষ্ঠান যদি তার কাছ থেকে সফটওয়্যার নেয়, তাহলে ঐ প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আমরা আইনী পদক্ষেপ গ্রহণ করবো।’

মন্তব্য