আমাদের মেইল করুন abasonbarta2016@gmail.com
নকশা অনুমোদন দেবে রাজউক, দেখভাল করবে সিটি করপোরেশন

স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, ‘সিটি করপোরেশন এলাকায় যেকোনো ভবনের নকশা ও স্থাপত্য বিষয়ে অনুমোদন দেবে রাজউক। আর অনুমোদিত বিষয়গুলো যথাযথ বাস্তবায়ন হচ্ছে কিনা, তা পর্যবেক্ষণ করবে সিটি করপোরেশন।’

বৃহস্পতিবার মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে আন্তমন্ত্রণালয় সভা শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘ভবন বা অন্যান্য অবকাঠামো নির্মাণে রাজউক থেকে অনুমোদন নেওয়ার পর বিষয়টি সিটি করপোরেশনকে জানাতে হবে। ভবন নির্মাণে যে স্থান নির্ধারণ করা আছে, সেটি সরকারি জায়গা বা উপযুক্ত কি না, রাজউক থেকে যে নকশা বা ডিজাইন অনুমোদন দেওয়া হয়েছে তা সঠিকভাবে বাস্তবায়ন হচ্ছে কিনা, এ সব বিষয় দেখভাল করবে সিটি করপোরেশন।’

তিনি বলেন, ‘১৪ তলা ভবনের অনুমতি নিয়ে ২০ তলা নির্মাণ করা হয়। আবার ৩ হাজার স্কয়ার ফিটের অনুমতি নিয়ে ৬ হাজার স্কয়ার ফিট বানানো হয়। এ সব বিষয় সিটি করপোরেশন নজরদারি করবে। পরিকল্পিত নগরী গড়তে হলে এর কোনো বিকল্প নেই।’

খাল দখল প্রসঙ্গে মো. তাজুল ইসলাম বলেন, ‘বসিলায় খাল দখল করে অবৈধ স্থাপনা গড়ে তোলা হয়েছে। সিটি করপোরেশন যদি জানত, তাহলে অবশ্যই এসব নির্মিত হতো না। আর হলেও তাদের জবাবদিহিতার আওতায় আনা যেত।’

তিনি বলেন, অনেকেই অভিযোগ করে বলেন যে অপরিকল্পিতভাবে শহর গড়ে উঠেছে। যদি পরিকল্পিত ও বাসযোগ্য নগর গড়তে হয় তাহলে এর বিকল্প নেই। কাউকে হয়রানি করার জন্য এ সব করা হচ্ছে না।

সভায় সভাপতির বক্তব্যে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, ‘ডেঙ্গুসহ অন্যান্য মশাবাহিত রোগ প্রতিরোধে সিটি করপোরেশন এবং সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি সব নাগরিককে ভূমিকা পালন করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘বাড়ি-ঘর, অফিস আদালত, রাস্তা-ঘাট, ড্রেন, খাল-নালা সবকিছু পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। এডিসসহ অন্যান্য মশা প্রজনন বিষয়ে সাধারণ মানুষকে সচেতন করার জন্য ব্যাপক প্রচার-প্রচারণা চালানো শুরু করতে হবে। মশার কোনো বর্ডার নেই। উত্তর সিটি করপোরেশনে মশা থাকলে দক্ষিণে হবে না অথবা এক বাসায় হলে অন্য বাসায় হবে না এমনটি না। মশা নিধন করতে হলে সবাইকে সচেতন হতে হবে।’

সভায় ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম, দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র মো. রেজাউল করিম চৌধুরী, নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের মেয়র সেলিনা হায়াত আইভী, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ভারপ্রাপ্ত মেয়র মো. আসাদুর রহমান কিরন উপস্থিত ছিলেন। দেশরূপান্তর

মন্তব্য