আমাদের মেইল করুন abasonbarta2016@gmail.com
কানাডায় বাড়ি কিনতে পারবেন না বিদেশিরা

আবাসন বাজারের উত্তাপ দূর করতে দুই বছরের জন্য বাড়ি কিনতে বিদেশি বিনিয়োগকারীদের ওপর নিষেধাজ্ঞা দিতে যাচ্ছে কানাডা। অর্থাৎ আগামী দুবছর বিদেশিরা সেখানে কোনো বাড়ি কিনতে পারবেন না।

গত বৃহস্পতিবার (৭ এপ্রিল) দেশটির প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো সরকার এমন ঘোষণা দিয়েছে।

চলতি বছরের কেন্দ্রীয় বাজেট ঘোষণায় আবাসনের রেকর্ডমূল্য ও চাহিদার কথা উল্লেখ করা হয়েছে। এ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে কানাডার অর্থমন্ত্রী ক্রিস্টিয়া বিভিন্ন পদক্ষেপ নেওয়ার কথা জানিয়েছেন।-খবর নিউইয়র্ক টাইমস ও ইউএসএ টুডের

খবরে বলা হয়, বিদেশি বাড়ি ক্রেতাদের ওপর দুই বছরের নিষেধাজ্ঞা ও এক বছরের মধ্যে যারা বাড়ি বিক্রি করবেন, তাদের ওপর উচ্চ করারোপ করার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে কানাডায়। যদিও স্থায়ী বাসিন্দা ও বিদেশি শিক্ষার্থীসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়ার কথাও রয়েছে।
কানাডীয়রা যাতে আবাসন বাজারে ঢুকতে পারে, তা নিশ্চিত করতে বাজেটে কোটি কোটি ডলার বরাদ্দ রাখা হয়েছে। বিশেষ করে ব্যাংকে নতুন সঞ্চয়ী হিসাব ও প্রথম বার বাড়ি ক্রেতাদের ট্যাক্স ক্রেডিটে পরিবর্তন আনা হয়েছে।

আবাসনখাতে অতিরিক্ত চাপের কারণে গত বছরে ২০ শতাংশ মূল্যবৃদ্ধি পেয়েছে। কাজেই বাজার ঠাণ্ডা করতে সরকারের ওপর চাপ রয়েছে। উত্তর আমেরিকার দেশটিতে বাসাভাড়াও ক্রমাগত বাড়ছে।

কানাডার রিয়েল ইস্টেট অ্যাসোসিয়েশন বলছে, গেল দুবছর ধরে সেখানে গড় আবাসনমূল্য ৫১ শতাংশের বেশি বেড়ে আট লাখ ৬৮ হাজার ৪০০ মার্কিন ডলার হয়েছে। এসব কিছু মাথায় রেখে বিদেশি ও অকানাডীয়দের বাড়ি কেনা দুবছর নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

ভ্যাংকুভার ও টরোন্টোর মতো বাজারে বিদেশি অর্থ বাড়ির মূল্য বাড়াতে ইন্ধন দিচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। এ নিয়ে কানাডার রাজনৈতিক অঙ্গণে তীব্র বিতর্ক চলছে। এরপরেই দেশটির আবাসন খাতে বিদেশিদের বিনিয়োগে নিরুৎসাহিত করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

এদিকে ইউক্রেনে ৫০ কোটি মার্কিন ডলার সামরিক সহায়তার ঘোষণা দিয়েছে কানাডার কেন্দ্রীয় লিবারেল সরকার। রাশিয়ার সামরিক অভিযানের মুখে কিয়েভকে আরও মানবিক ও অর্থনৈতিক সহায়তারও ঘোষণা দিয়েছে কানাডা। 

মন্তব্য