আমাদের মেইল করুন abasonbarta2016@gmail.com
রিহ্যাব মেলায় ছাড় ও পুরস্কারের ছড়াছড়ি

স্বল্প ও মধ্যম আয়ের মানুষের সাধ ও সাধ্যের মধ্যে প্লট ও ফ্ল্যাটের পসরা নিয়ে বসেছে দেশের আবাসন শিল্পখাতের সবচেয়ে বড় আয়োজন ‘রিহ্যাব ফেয়ার-২০১৭’। রাজধানীবাসীর আবাসন সমস্যার সমাধান ও সহজেই প্লট-ফ্ল্যাটের মালিকানা তুলে দিতে ঢাকার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ২১ ডিসেম্বর থেকে চলছে পাঁচ দিনব্যাপী এই মিলনমেলা। চলবে আগামী ২৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত। ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে মেলা উপলক্ষে ফ্ল্যাট বা প্লট বুকিংয়ে বিভিন্ন ধরনের পুরস্কার ও বিশেষ ছাড়ের অফার দিচ্ছে অংশ নেওয়া আবাসন কোম্পানি ও বিভিন্ন হাউজিং প্রতিষ্ঠানগুলো। তুলনামূলক কিস্তি সুবিধা, কম দাম এবং সহজলভ্য অ্যাপার্টমেন্টগুলো ক্রেতাদের পছন্দে আসছে বলে জানিয়েছেন আয়োজকরা। এক ছাদের নিচে আবাসনের অ্যাপার্টমেন্ট-প্লট এবং নির্মাণ সামগ্রী ও হোম লোনের তথ্য পেয়ে আবাসন ব্যবসায়ীদের পাশাপাশি খুশি ক্রেতা-দর্শনার্থীরাও। এছাড়া, ঢাকার আশপাশ ও রাজধানীর বাইরে জমি কিনতে চাইলেও মেলা থেকে কেনার সুযোগ আছে।

আবাসন মালিকদের শীর্ষ সংগঠন রিয়েল এস্টেট এ্যান্ড হাউজিং এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশের (রিহ্যাব) আয়োজিত মেলায় এবার ২০৫টি স্টল রয়েছে। এই ফেয়ারে ৩০টি বিল্ডিং ম্যাটেরিয়ালস ও ১৩ অর্থলগ্নীকারী প্রতিষ্ঠান অংশ নিয়েছে। আর কো-স্পন্সর হিসেবে আছে মোট ২৪টি প্রতিষ্ঠান। মেলার তৃতীয় দিন শনিবার (২৩ ডিসেম্বর) ছুটির দিন হওয়ায় সকাল থেকেই ঠল নেমেছে মেলা প্রাঙ্গণে। দর্শনার্থীর চেয়ে ক্রেতার সংখ্যাই বেশি। আয়োজকরা জানায়, মেলায় বিশেষ ছাড় ও অফারের কারণে বেচাকেনায় গতি পেয়েছে। আজ ফ্ল্যাটের বিক্রি আরও বাড়বে। কেননা, ছুটির দিন বেলা যতই গড়াবে ক্রেতা-দর্শনার্থীদের ভিড় ততই বাড়বে।

একনজরে দেখে নেওয়া যাক বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের অফারগুলো-
মেলায় অংশ নেওয়া বিটিআই তাদের উত্তরখানে নির্মাণাধীন ছায়াবীথি প্রকল্পে বিশেষ ছাড়ে ফ্ল্যাট বিক্রির ঘোষণা দিয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির সেলস এক্সিকিউটিভ জোসেফ মুজমদার বলেন, মেলা উপলক্ষে আমাদের উত্তরার উত্তরখান ছায়াবীথি প্রকল্পে ৯৩৫ বর্গফুট আয়তনের ফ্ল্যাট ৩৫ লাখ টাকায় বিক্রির অফার দেওয়া হয়েছে। বুকিংমানি মাত্র ৩ লাখ টাকা। সেই সঙ্গে ফ্ল্যাটের বুকিং দিলে দেওয়া হবে ৫০ হাজার টাকার গিফট ভাউচার এবং ফ্রি কিচেন কেবিনেট। অনেকে আমাদের প্রকল্পগুলো দেখছেন। বেশ সাড়া পাচ্ছি।

মেলা উপলক্ষে প্রতিটি ফ্ল্যাট ক্রেতাদের জন্য ৫ লাখ টাকা ছাড়ের ঘোষণা দিয়েছে হক হোম অ্যান্ড বিল্ডার্স লিমিটেড। প্রতিষ্ঠানটির এক কর্মকর্তা বলেন, আমাদের কোম্পানির সব ফ্ল্যাট বিক্রির ক্ষেত্রে ৫ লাখ ছাড়ের অফার চলছে। মেলায় আসা ক্রেতা-দর্শনার্থীরা আমাদের ফ্ল্যাট দেখছেন এবং কেউ কেউ কেনার আশ্বাসও দিচ্ছেন।

মাঝারি আয়তনের ফ্ল্যাটের খোঁজে স্ত্রীকে নিয়ে মেলায় আসেন মিরপুরের বাসিন্দা আসলাম উদ্দিন। তিনি বলেন, মিরপুর ২ নম্বর এলাকায় একটি ফ্ল্যাট কেনার আশায় এখানে এসেছি। আমাদের মাঝারি আকারের একটি ফ্ল্যাট কেনার ইচ্ছা। অনেক কোম্পানি মেলায় অংশ নিয়েছে। তা ছাড়া এখানে কিছুটা ছাড়ও পাওয়া যায়। বিভিন্ন কোম্পানির ফ্ল্যাট দেখেছি। পছন্দও হচ্ছে। যেটি দাম ও লোকেশন ভালো লাগে, সেটিই কেনার সিদ্ধান্ত নেব।

ইউ-এস বাংলা অ্যাসেট লিমিটেড মেলা উপলক্ষে রেডি প্লটে সাড়ে চার লাখ টাকা ছাড়ের অফার দিয়েছে। কোম্পানির ডেপুটি ম্যানেজার গোলাম মোরশেদ ইমরান বলেন, আমাদের পূর্বাচল আমেরিকান সিটির ‘এ’ ও ‘বি’ ব্লকে রেডি প্লট কাঠাপ্রতি ১৮ লাখ টাকায় বিক্রি হতো। মেলা উপলক্ষে সাড়ে চার লাখ ছাড়ে সাড়ে ১৩ লাখ টাকায় বিক্রির অফার চলছে। এছাড়া, যেসব প্লট এখনো রেডি হয়নি, সেগুলো বিক্রিতেও বিশেষ ছাড় দেওয়া হচ্ছে।

বাংলাদেশ ল্যান্ড ভেভেলপমেন্ট লিমিটেডও মেলা উপলক্ষে সাউথ টাউন প্রকল্পে প্লট বিক্রিতে বিশেষ অফার দিয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির রেডি প্লট ক্রয়ে এককালীন অর্থ পরিশোধে ৪০ শতাংশ এবং কিস্তিতে ১০ থেকে ৩০ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দেওয়া হচ্ছে।

পূর্বাচল এনআরবি হোমস তাদের প্লটে মেলা উপলক্ষে ২৫ শতাংশ ছাড় দিচ্ছে। এককালীন নগদ মূল্যে যারা প্লট ক্রয় করবেন তারা এ সুবিধা পাবেন। ৫ কাঠার একটি প্লটের মূল্য ৫২ লাখ টাকা। যা মেলা উপলক্ষে দেওয়া হচ্ছে ৩৯ লাখ টাকায়। এছাড়া, মেলায় বুকিং দিয়ে কাঠাপ্রতি ৬ হাজার ৯৩৪ টাকা কিস্তিতে প্লট কেনার সুযোগ থাকছে।

ইমপেরিয়াল রিয়েল এস্টেট কোম্পানি তাদের ৯টি প্রকল্পের মধ্যে ২টি প্রকল্পের রেডি ফ্লাটে ১৭ শতাংশ ছাড় দিচ্ছে। মধ্য বাসাবোর ইমপেরিয়াল রাজিয়া গার্ডেন ও মিরপুর-১০ নম্বরে ইমপেরিয়াল জহির হোমস প্রকল্পে এ ছাড় দেওয়া হচ্ছে। এছাড়া, তাদের অন্যান্য প্রকল্পেও ৫ শতাংশ থেকে ১২ শতাংশ পর্যন্ত ছাড় দেওয়া হচ্ছে মেলা উপলক্ষে।

হাইপেরিয়ান গ্রুপের হাইপেরিয়ান হোটেল সান কোস্ট লি. কক্সবাজার। এখানে মাত্র ১ লাখ ২৫ হাজার টাকায় থ্রি স্টার হোটেলের মালিক হওয়ার সুযোগ রয়েছে। এ হোটেলটি আগামী বছরের ১৮ জুলাই উদ্বোধন করা হবে। এতে ১ লাখ ২৫ হাজার টাকা বিনিয়োগ করে যে কেউ প্রতিমাসে ১ হাজার ২৫০ টাকা আয় করতে পারবেন। থাকছে বছরে ৬ দিন ফ্রি অবকাশ যাপনের সুবিধা।

পূর্বাচল মালুম সিটি মেলা উপলক্ষে এককালীন প্লট ক্রয়ে ৩০ শতাংশ ছাড় দিচ্ছে। রাজউক পূর্বাচলের ৪ ও ২১ নম্বর সেক্টর সংলগ্ন শীতলক্ষ্যা নদীর তীরে আধুনিক সুপরিকল্পিত আবাসন পূর্বাচল মালুম সিটি। মালুম সিটির মার্কেটিং ম্যানেজার মেসকাত হোসাইন বলেন, তাদের এ অফার চলবে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত। প্রকল্প পরিদর্শনের জন্য পরিবহনের ব্যবস্থা রয়েছে বলেও জানান তিনি।

শামসুল আল-আমিন রিয়েল এস্টেট লিমিটেডের অনেকগুলো প্রকল্প চলমান। এর মধ্যে মিরপুর মাজার রোডে তাদের একটি প্রকল্পের নাম আল-আমিন আজমল ফেলিসিটা। এখানে মাত্র ৪ হাজার ৫০০ টাকা স্কয়ার ফিটে ফ্লাট বিক্রি করা হচ্ছে মেলা উপলক্ষে। রয়েছে কিস্তি সুবিধা। ২৪ কিস্তিতে ২৪ লাখ ও বাকি টাকা এককালীন দিয়ে মাত্র ৩০ লাখ টাকায় ৭০০ স্কয়ার ফিটের একটি ফ্লাটের মালিক হতে পারবেন ক্রেতা।

প্রতিষ্ঠানের ডেপুটি ম্যানেজার মাসুম বিল্লাহ বলেন, ৬০ ফিট সড়কের পাশে নান্দনিক আর্কিটেকচারাল ডিজাইনের প্রকল্পটি ঢাকার মিরপুর মাজার রোডে। রয়েছে সহজ শর্তে ব্যাংক লোনের ব্যবস্থা।

অন্যদিকে, পূর্বাচল মেরিন সিটি বুকিং মানিতে পার কাঠা ১০,০০০ টাকায় প্লট দিচ্ছে। পূর্বাচল মেরিন সিটি বাংলাদেশের এক এবং একমাত্র আবাসন প্রকল্প যা রাজউক পরিকল্পিত মেগাসিটি পূর্বাচল নিউ টাউননের সেক্টর- ২১, ২২ ও ৩০ দ্বারা পরিবেষ্টিত এবং জিন্দা পার্ক সংলগ্ন। এদিকে, খুব অল্প সময়ের মধ্যে তিন শতাধিক প্লট হস্তান্তরের উপযোগী করে তুলেছে পূর্বাচল মেরিন সিটি, যা শিগগিরই হস্তান্তর করা হবে বলে জানা গেছে।

পূর্বাচল মেরিন সিটি সূত্রে জানা যায়, ক্যাশ পেমেন্ট ২৫% ছাড়সহ ৩ দিনের মধ্যে সাফ কাবলা এবং প্লট বুঝিয়ে দেয়া হয়। পূর্বাচল মেরিন সিটি সম্পর্কে যেকোনো তথ্য এবং প্রকল্প পরিদর্শনের জন্য ০১৬ ১৭৫ ১৭৫ ২৫ এই নম্বরে যোগাযোগ করার কথা জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তারা।

এদিকে, মেলায় ফ্ল্যাট ক্রয়ে আগ্রহীদের গৃহঋণ এবং এ সম্পর্কিত তথ্য জানাতে অংশ নিয়েছে ব্যাংক ও অর্থলগ্নী প্রতিষ্ঠান। সরকারি পর্যায়ে ঋণ প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান হাউজ বিল্ডিং ফাইন্যান্স করপোরেশনের (বিএইচবিএফসি) সিনিয়র অফিসার আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, ফ্ল্যাট ক্রেতাদের সাড়ে আট শতাংশ সরল সুদে ঋণ দিচ্ছে বিএইচবিএফসি। প্রবাসবন্ধু, নগরবন্ধু, পল্লীমা, আবাসন উন্নয়ন ও আবাসন মেরামত খাতে এসব ঋণ দেওয়া হচ্ছে। মেলায় আসা ক্রেতা-দর্শনার্থীরা আমাদের ঋণ সম্পর্কে তথ্য জানছেন।

রিহ্যাব পরিচালক ও প্রেস অ্যান্ড মিডিয়া কমিটির কো-চেয়ারম্যান কামাল মাহমুদ সাংবাদিকদের বলেন, মেলা হচ্ছে ক্রেতা-বিক্রেতার সেতুবন্ধন। একজন ক্রেতা যেন এক ছাদের নিচে প্লট, ফ্ল্যাট ও ঋণসংক্রান্ত বিষয়গুলোর সম্পর্কে খোঁজ নিতে পারেন, এ জন্যই মেলার আয়োজন। শুক্রবার ছুটির দিন থাকায় প্রচুর লোকসমাগম ঘটেছে। বিপুলসংখ্যক ক্রেতা-দর্শনার্থীর আগমনে আবাসন ব্যবসায়ীরা আশান্বিত। আশা করছি, মেলার এ আমেজ আবাসন খাতের গতি ফেরাতে সহায়তা করবে।

২১ ডিসেম্বর বেলা ১১টায় বিআইসিসিতে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে রিহ্যাব ফেয়ারের উদ্বোধন করেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। প্রথম দিন, ২১ ডিসেম্বর ক্রেতা-দর্শনার্থীরা দুপুর ২টা থেকে মেলায় প্রবেশ করতে পারেন। বাকি দিনগুলোতে সকাল ১০ থেকে রাত ৯ টা পর্যন্ত ক্রেতা- দর্শনার্থীরা প্রবেশ করতে পারবে। মেলায় দুই ধরনের টিকিট রয়েছে। একটি সিঙ্গেল এন্ট্রি অপরটি মাল্টিপল এন্ট্রি। সিঙ্গেল টিকিটের প্রবেশ মূল্য ৫০ টাকা। আর মাল্টিপল এন্ট্রি টিকিটের প্রবেশ মূল্য ১০০ টাকা। মাল্টিপল এন্ট্রি টিকিট দিয়ে একজন দর্শনার্থী মেলার সময় ৫ বার প্রবেশ করতে পারবেন। এন্ট্রি টিকিটের প্রাপ্ত সম্পন্ন অর্থ দুঃস্থদের সাহায্যার্থে ব্যয় করা হবে বলে জানায় রিহ্যাব।

শীতকালীন এই মিলনমেলায় এন্ট্রি টিকিটের রাফ্রেল ড্র তে রয়েছে আকর্ষণীয় মূল্যবান পুরস্কার। এ বছর রাফেল ড্র এর ১ম পুরস্কার- ১টি প্রাইভেট কার, ২য় পুরস্কার একটি মোটরসাইকেল, ৩য় পুরস্কার ১টি ফ্রিজ, ৪র্থ পুরস্কার-১টি ৪৩ ইঞ্চি এলইডি টেলিভিশন, ৫ম পুরস্কার-১টি ওয়াশিং মেশিন এবং ৬ষ্ঠ থেকে ১০ম পর্যন্ত মোবাইল ফোন। মেলার শেষ দিন ২৫ ডিসেম্বর রাত ৯টায় রাফেল ড্র অনুষ্ঠিত হবে। বিজয়ীদের নাম ও টিকিট নং রিহ্যাব ওয়েব সাইটয়ে প্রচার করা হবে। বি:দ্র: পুরস্কার গ্রহণের সময় বিজয়ীকে টিকিটের সংরক্ষিত অংশটি প্রদর্ন করতে হবে।

সম্পাদনা: আরএ/এমএন/জেডএইচ

মন্তব্য