আমাদের মেইল করুন abasonbarta2016@gmail.com
ঢাকায় নিম্ন ও মধ্য আয়ের মানুষের জন্য যেসব ফ্ল্যাট

দরিদ্র বস্তিবাসী, নিম্ন ও মধ্য আয়ের মানুষের জন্য রাজধানী ঢাকায় একের পর এক ফ্ল্যাট তৈরি করছে রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (রাজউক) ও জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ। মিরপুর, মোহাম্মদপুরের ইকবাল রোড, আসাদ এভিনিউ, হুমায়ুন রোড, এলিফ্যান্ট রোড ও গুলশানে বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে হচ্ছে এসব ফ্ল্যাট। এলাকা ভেদে এসব ফ্ল্যাটে রয়েছে দামের পার্থক্যও।

রাজউক ও জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ সূত্রে জানা গেছে, মোহাম্মদপুরের রিং রোডের পাশে ‘এফ’ ব্লকে ১৫টি ১৪ তলার ভবন তৈরি হচ্ছে নিম্ন ও মধ্য আয়ের মানুষের জন্য। সেখানে দুই ক্যাটাগরিতে এক হাজার ও এক হাজার ২৫০ বর্গফুটের ৯০০ ফ্ল্যাট তৈরি হচ্ছে। সেখানে প্রতি বর্গফুটের দাম ধরা হয়েছে চার হাজার ৪০০ টাকা। সঙ্গে রয়েছে ইউটিলিটি ফি, রেজিস্ট্রি খরচ, পার্কিং ফি প্রভৃতি। সব মিলিয়ে এক হাজার ২৫০ বর্গফুটের একটা ফ্ল্যাটের দাম পড়বে প্রায় ৭০ লাখ টাকা।

মিরপুরের ৯ নম্বর সেকশনেও তৈরি হচ্ছে নিম্ন ও মধ্য আয়ের মানুষের জন্য এক হাজার ৫৬০টি ফ্ল্যাট। দাম একই। মিরপুর ১৪ নম্বরে তৈরি হচ্ছে ২১ আগস্টের গ্রেনেড হামলায় নিহত ও আহতদের পরিবারের জন্য এক হাজার ৫০০ বর্গফুটের ফ্ল্যাট। ফ্ল্যাটের দাম ৪৫ লাখ টাকা। সঙ্গে ইউটিলিটি, পার্কিং, রেজিস্ট্রি খরচ। এখানেও মোট দাম পড়ছে প্রায় ৬০ লাখ টাকা।

এছাড়া, গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের উদ্যোগে নিম্ন ও মধ্য আয়ের মানুষের জন্য বাস্তবায়িত হচ্ছে মিরপুরের স্বপ্ননগর-১ ও স্বপ্ননগর-২ ফ্ল্যাট প্রকল্প।

মিরপুরে বাউনিয়া বাঁধের পাশে বস্তিবাসী ও নিম্ন আয়ের জন্য হচ্ছে ফ্ল্যাট প্রকল্প। এ প্রকল্পে ৫৫০ বর্গফুটের একটি ফ্ল্যাটের দাম পড়বে প্রায় ৩০ লাখ টাকা। এছাড়া, ধানমণ্ডির ২, ৬/এ, ১২/এ নম্বর সড়কে ছয়টি প্রকল্প বাস্তবায়িত হচ্ছে। ধানমণ্ডিতে দাম ধরা হয়েছে সাড়ে ৯ হাজার টাকা।

মোহাম্মদপুরের ইকবাল রোড, আসাদ এভিনিউ, হুমায়ুন রোড, এলিফ্যান্ট রোডে হচ্ছে নিম্ন ও মধ্য আয়ের মানুষের জন্য ফ্ল্যাট। এগুলোর প্রতি বর্গফুটের দাম পাঁচ হাজার ২০০ টাকা। ফ্ল্যাটের আয়তন এক হাজার ৪০০ থেকে এক হাজার ৬০০ বর্গফুট।

গুলশানের ১১৫ নম্বর সড়কের ৩২ নম্বর হোল্ডিংয়ে রাজউক তৈরি করেছে দুই হাজার ১২, দুই হাজার ৩২৪ ও দুই হাজার ১৬৫ বর্গফুটের ২৭টি ফ্ল্যাট। এগুলোর দাম ধরা হয়েছে সাড়ে ১২ হাজার টাকা প্রতি বর্গফুট। কাজেই এগুলোর দাম পড়বে পৌনে তিন কোটি টাকা।

সম্পাদনা: আরএ/আরবি/এমএন

মন্তব্য