আমাদের মেইল করুন abasonbarta2016@gmail.com
বাজেটকে অভিনন্দন জানিয়ে যা বললেন রিহ্যাব সভাপতি

জীবন ও জীবিকার বাস্তবতাকে প্রাধান্য দিয়ে মহান জাতীয় সংসদে ২০২১-২০২২ অর্থবছরের জনকল্যাণমূখী জাতীয় বাজেট প্রস্তাব করার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, অর্থমন্ত্রী এবং জাতীয় রাজস্ব বোর্ড এর চেয়ারম্যানসহ বাজেট প্রণয়নে সংশ্লিষ্ট সকলকে রিয়েল এস্টেট এ্যান্ড হাউজিং এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (রিহ্যাব) এর পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানাই। করোনার মতো ভয়াবহ বৈশ্বিক মহামারির মধ্যে ৬ লক্ষ ৩ হাজার ৬৮১ কোটি টাকার সুচিন্তিত সময় উপযোগী বাজেট বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ, তার লক্ষ্যে অনেকদুর এগিয়ে যাবে বলে আমরা বিশ্বাস করি।

প্রস্তাবিত জাতীয় বাজেটে সরকার আবাসন খাত সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন নির্মাণ সামগ্রী বিশেষ করে রড,সিমেন্ট, টাইলস সহ বিভিন্ন কাঁচামালে যে বিশেষ শুল্ক ছাড় দিয়েছে তার জন্য আমরা অভিনন্দন জানাই। একই সাথে সরকার ফ্ল্যাট এবং এ্যাপার্টমেন্ট ক্রয়ে অপ্রদর্শিত অর্থ বিনিয়োগের যে সুবিধা অব্যাহত রেখেছে তা এই খাতে ফলপ্রসু ভূমিকা রাখবে এবং অভ্যন্তরীণ সম্পদ বৃদ্ধিতে সহায়তা করবে। সরকারি হিসেব মতে এখন পর্যন্ত প্রায় ১৪ হাজার কোটি টাকা অর্থনীতির মূলস্রোত ধারায় এসেছে, যেখান থেকে সরকার রাজস্ব পেয়েছে প্রায় দেড় হাজার কোটি টাকা। যা কোভিড পরিস্থিতিতে অর্থনীতির প্রাণচাঞ্চল্য ফেরাতে কার্যকর ভূমিকা রেখেছে। আমরা দৃঢ় ভাবে বিশ্বাস করি এই নীতি অব্যাহত থাকলে আরো বহুগুণ অর্থ, অর্থনীতির মূলধারায় যোগ হবে যা প্রকারান্তে রাজস্ব আয় বৃদ্ধিতে সহায়ক হবে। প্রস্তাবিত বাজেটে করপোরেট এবং বার্ষিক টার্নওভার কর হার কমানো হয়েছে যা খুবই ইতিবাচক। এ বাজেট যেমনটা ব্যবসাবান্ধব তেমনি বাস্তবোচিত এবং জনবান্ধব।

আমরা দীর্ঘ দিন ধরে সরকারের উন্নয়ন সহযোগী হিসেবে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছি। সব মিলিয়ে সমগ্র নির্মাণ খাতে প্রায় ৫০ লক্ষ জনশক্তি জড়িত। রিয়েল এস্টেট খাতকে ঘীরে গড়ে ওঠা লিংকেজ শিল্প ঘূর্ণয়মান রেখেছে আমাদের অর্থনীতি। প্রতি বছর বিভিন্ন খাত উপখাত মিলে এই রিয়েল এস্টেট সেক্টর থেকে সরকারের কোষাগারে প্রত্যক্ষ এবং পরোক্ষ ভাবে জমা হয় প্রায় এক লক্ষ কোটি টাকার রাজস্ব। এজন্য এই খাতকে বিশেষ গুরুত্ব দিতে হবে। দেশবাসী যাতে ভাড়ার টাকায় মাথা গোঁজার একটা ঠিকানা খুঁজে পায় সেজন্য স্বল্প সুদের দীর্ঘমেয়াদী একটি তহবিল গঠন আমাদের প্রাণের দাবি। অন্যান্য দেশের তুলনায় এই খাতে নিবন্ধন ব্যয় আরো কমানোর সুযোগ রয়েছে। রিহ্যাব এর অন্যান্য দাবি সমূহ আগামীতে সরকার বাস্তবায়ন করবে বলে আশা করে রিহ্যাব।

আলমগীর শামসুল আলামিন (কাজল), প্রেসিডেন্ট, রিহ্যাব

মন্তব্য